সংসদে অশালীন বক্তব্য দিলে বহিষ্কার ও বেতন কাটতে জুনায়েদ আহমদ পলকের দাবি

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য জুনায়েদ আহমদ পলক দাবী জানিয়ে বলেছেন সংসদের সুনাম ধরে রাখার জন্য কোনো সংসদ সদস্য অসংসদীয় বা অশালীন কথা বললে তাকে অন্তত এক দিনের জন্য সংসদ থেকে বহিষ্কার এবং বেতন থেকে টাকা কেটে নেয়ার দরকার।

সোমবার সকালে জাতীয় সংসদের বৈঠকের শুরুতে ২৭৪ বিধিতে দেয়া বক্তব্যে তিনি বলেন, মাত্র দুই তিনজন সংসদ সদস্যের কারণে ৩৫০জন সংসদ সদস্যের সম্মানহানি হচ্ছে। তারা রাজনীতিকেও কলুষিত করছে। তাই কেউ অশালীন বক্তব্য দিলে শুধু তার মাইক বন্ধ করাই নয়, বরং তাকে সংসদ থেকে বের করে দেয়ার দাবি জানান পলক।

দেশের মানুষ সংসদ সদস্যদের গালাগাল শোনার জন্য টেলিভিশনে সংসদ অধিবেশন দেখে না বলে জানিয়ে তিনি বলেন, জনগণের করের টাকায় এ সংসদ চলে। তাই যেসব সংসদ সদস্য অশালীন কথা বলে সংসদের সময় নষ্ট করবেন, তাদের বেতন থেকে যেন ওই সময়ের সম পরিমাণ অর্থ কেটে নেয়া হয়।

এর আগে বিরোধী দলীয় সংসদ সদস্য আন্দালিব রহমান পার্থও সংসদে অশালীন বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, প্রধান দুই দলের নেত্রী বা তাদের পরিবারের সদস্যদের সম্পর্কে কেউ কিছু বললে সংসদ সদস্যরা তার বিরুদ্ধে কথা বলার সময় সংসদীয় সমস্ত রীতি নীতি ভুলে যান।

তিনি বলেন, গত ১৭ জুন বাজেট আলোচনায় আমি কাউকে ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করিনি। তারপরও আমার বক্তব্যের বিরোধিতা করে অনেক সংসদ সদস্য এমনকি সিনিয়র সংসদ সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্তও আমার সমালোচনা করেছেন।

আন্দালিব রহমান বলেন, এই যদি অবস্থা হয়, তাহলে তরুণ সংসদ সদস্যরা কার কাছ থেকে শিখবে।

বস্তুনিষ্ঠভাবে সরকারের সমালোচনা করার কারণেই তাকে এবং তার বাবা ও পরিবার সম্পর্কে আপত্তিকর বক্তব্য দেয়া হয়েছে বলে আন্দালিব দাবি করেন।

তবে আন্দালিব ও পলকের এই বক্তব্যের পরে সরকারি ও বিরোধী দলের আরো কয়েকজন সদস্য ফ্লোর চাইলেও স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী কাউকে সুযোগ দেননি।

সংসদে এখন ২০১৩-১৪ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনা চলছে। পবিত্র শবে বরাতের কারণে অধিবেশন আজ সকালে শুরু হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।