রায়পুরে বিএনপির দুই গ্র“পে সংঘর্ষে আহত ২৫

রায়পুর উপজেলার ক্যারোয়া ইউনিয়নের সুনামগঞ্জ বাজারে বিএনপির দুই গ্র“পের মধ্যে সংঘর্ষ ঘটে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ২৫ নেতাকর্মী আহত হয়েছে। সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
উভয় পক্ষের আহতরা হলেন- বাবুল পণ্ডিত, সিরাজ মিয়া, আলাউদ্দিন, দুলাল মোল্লা, জাহাঙ্গীর হোসেন, ইউপি সদস্য আব্দুল গণি, সাহেদ হোসেন, মো. সায়েদ, ফরিদ, আনোয়া, ফিরোজ, ইসমাইল হোসেন, পারভেজ ও মাসুদ আলমসহ অন্তত ২৫ জন।
প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় বিএনপি সূত্রে জানা যায়, ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক পদ প্রত্যাশী দুই প্রার্থী নজরুল ইসলাম সরকার ও জহিরুল আলম বাচ্চুর সমর্থকদের মধ্যে বিবাদমান দ্বন্দ্বের জের ধরে রাতে উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে একে অপরের ওপর হামলা করে। এ সময় ঢাকা জজকোটের্র অ্যাডভোকেট জসিমউদ্দিনের বাড়ি ও স্থানীয় বাবুল পণ্ডিতের মুদিদোকানে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করা হয়। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ২৫ জন আহত হয়। খবর পেয়ে পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।আহতদের লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল, রায়পুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে বিএনপি নেতা নজরুল ইসলাম সরকার বলেন, অতর্কিতভাবে বাচ্চু ও গণির নেতৃত্বে কয়েকজন সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমার নেতাকর্মীর ওপর হামলা করে। এছাড়াও বেশ কয়েবার তারা আমার নেতাকর্মীরদের উপর হামলা করে আহত করে। বিষয়টি থানা পুলিশকে মৌখিকভাবে জানানো হয়েছে। আমি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।
অপর অংশের নেতা জহিরুল আলম বাচ্চু অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, নজরুল সরকারের লোকজন অন্যায়ভাবে আমার নেতাকর্মীদের মেরেছে। আমি পুলিশ ও বিএনপি নেতাদের জানিয়েছি।
রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাশেম চৌধুরী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে এ সংঘষের্র ঘটনা ঘটেছে। এ বিষয়ে উভয় পক্ষের লোকজন মৌখিকভাবে অভিযোগ করেছে। যদি কেউ মামলা করে তা হলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।