কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজে ছাত্রদলের ভাঙচুর: শিক্ষক আহত

কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করেছে ভিক্টোরিয়া কলেজ ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। মাস্টার্স পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে মোবাইল নেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে বুধবার দুপুর আড়াইটায় এ হামলা-ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। এতে সরকারি মহিলা কলেজের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক জামাল নাসের আহত হন।
জানা যায়, ভিক্টোরিয়া কলেজের শিক্ষার্থীরা কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজে মাস্টার্স পরীক্ষা দিচ্ছে। প্রথমদিন তাদের পরবর্তী পরীক্ষা থেকে সঙ্গে মোবাইল ফোন আনতে নিষেধ করা হয়েছিল। কিন্তু পরীক্ষার্থীরা নিষেধ অমান্য করে পরীক্ষার হলে মোবাইল নিয়ে আসে। এতে পরীক্ষা শুরু হওয়ার পর ১৯ টি কক্ষের পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে ২১০ টি মোবাইল নিয়ে অফিসে এনে রাখেন সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ ইন্দু ভূষণ ভৌমিক । কিন্তু পরীক্ষা শেষে দুপুর দেড়টায় পরীক্ষার্থীরা মোবাইল ফেরত চাইলে তিনি তাদের জানান, প্রবেশপত্রে উল্লেখ রয়েছে মোবাইল সঙ্গে আনলে বহিস্কার করা হবে। নিষেধ করা সত্ত্বেও মেবাইল নিয়ে আসায় শা¯িত হিসেবে আগামী ৩০ জুন তৃতীয় পরীক্ষার দিন মোবাইল ফেরত দেওয়া হবে। এতে পরীক্ষার্থীরা ক্ষেপে যায়।
এদিকে শিক্ষার্থীরা জানায়, দুইটার দিকে ভিক্টোরিয়া কলেজ ছাত্রদলের আহ্বায়ক এনামুল হক সবুজের নেতৃত্বে ছাত্রদল কর্মীরা এসে কলেজের নয়টি কক্ষের জানালার কাঁচ ও কয়েকটি কক্ষের দরজা ভাঙচুর করে। পরে কান্দিরপাড় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) ফিরোজ এসে অধ্যক্ষের সঙ্গে কথা বলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। পরে পরীক্ষার্থীদের মোবাইল ফেরত দেওয়া হয়।
এদিকে কলেজের অধ্যক্ষ ইন্দু ভূষণ ভৌমিক অভিযোগ করেছেন, এসআই ফিরোজ মোবাইল ফেরত দিতে বলে তার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেছেন।
তবে এসআই ফিরোজ জানান, তিনি অধ্যক্ষকে মোবাইলগুলো ফিরিয়ে দিতে বলেছেন। না হলে ছাত্ররা ক্ষেপে গেলে পরিস্থিতি আরো খারাপ হতে পারে।
এদিকে, সরকারি মহিলা কলেজের সব শিক্ষকরা এসআই ফিরোজের পক্ষপাতিত্ব ও অনৈতিক আচরণের প্রতিবাদ জানিয়ে তাকে অপসারণের জন্য প্রশাসনের কাছে লিখিত দাবি জানানোর প্র¯তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে।
উল্লেখ্য বুধবার সমাজ বিজ্ঞান, সমাজকল্যাণ, অর্থনীতি, রসায়ন, উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিষয়ের পরীক্ষা ছিল।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।