সোমবার, অক্টোবর 18, 2021
সোমবার, অক্টোবর 18, 2021
সোমবার, অক্টোবর 18, 2021
spot_img
Homeবাংলাদেশদুদকের নতুন চেয়ারম্যান বদিউজ্জামান

দুদকের নতুন চেয়ারম্যান বদিউজ্জামান

দুর্নীতি দমন কমিশনের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন, কমিশনার মোহাম্মদ বদিউজ্জামান। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের জারি করা এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, চেয়ারম্যান হিসেবে নতুন কাউকে রাষ্ট্রপতি নিয়োগ না দেয়া পর্যন্ত তিনি এই দায়িত্ব পালন করবেন। সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম রহমানের মেয়াদ শেষ হয় গতকাল। তার স্থলে দায়িত্ব পাওয়া মোহাম্মদ বদিউজ্জামান।

এই চার বছরে বহু গুরুত্বপূর্ণ, স্পর্শকাতর ও আলোচিত ঘটনার তদন্তভার নেওয়ার কারণে প্রতিষ্ঠান হিসেবে দুদকও ছিল গণমাধ্যমে আলোচিত। পদ্মা সেতুর তদন্ত থেকে শুরু করে সর্বশেষ রানা প্লাজা ধসসহ প্রায় সকল আলোচিত ঘটনাই কোনো না কোনো পথে দুদকে এসে ঠেকেছে।

গোলাম রহমান মনোযোগের কেন্দ্রে আসার কারণ, গত দুবছরে যে ঘটনাই আলোচিত হয়ে উঠেছে, সেই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে দুদকের নাম। কমিশন গঠনের পর গোলাম রহমানই প্রথম ব্যক্তি যিনি চেয়ারম্যান হিসেবে পুরো মেয়াদ কাল শেষ করেছেন।

বিদায় বেলায় নিজের সম্পর্কে মূল্যায়ন করতে নিজেকে তিনি সফল বলে দাবি করেননি। তবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার সঙ্গে যারা যুক্ত, তারা এ কাজে এগিয়েই রাখতে চান মৃদুভাষী সাবেক এই সচিবকে।
গত ২৩ জুন গোলাম রহমানের চার বছরের মেয়াদ শেষ হওয়ার মধ্যদিয়ে দুদকের চেয়ারম্যান পদটি শূন্য হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, দুদকের নতুন কমিশনার নিয়োগ দেয়ার জন্য সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের একজন বিচারপতির নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের বাছাই (সার্চ) কমিটি কাজ করে।

এ কমিটি এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন, বিমানবাহিনীর সাবেক প্রধান জিয়াউদ্দিন, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সাবেক মুখ্য সচিব আবদুল করিমের নাম রাষ্ট্রপতির কাছে জমা দেয়।

এদিকে, ড. নাসিরউদ্দীন আহমেদকে দুদকের কমিশনার হিসেবে নিযুক্ত করা হয়েছে। আলাদা এক প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে, অবসরপ্রাপ্ত সচিব ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের প্রাক্তন চেয়ারম্যান ড. নাসিরউদ্দীন আহমেদকে দুর্নীতি দমন কমিশনের কমিশনার পদে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪-এর ৬ ধারার বিধানমতে এ নিয়োগ দেয়া হয়েছে বলে এতে উল্লেখ করা হয়।

দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪-এর ১৩ ধারার বিধানমতে কমিশনার ড. নাসিরউদ্দীন আহমেদের পারিশ্রমিক, ভাতা ও আর্থিক সুবিধা সুপ্রিমকোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের একজন বিচারকের সমরূপ নির্ধারণ করা হয়েছে।

 

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments