চকরিয়ায় কাকারা ইউপি সচিবের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে টাকা আদায় ও হয়রানি করার অভিযোগ

চকরিয়ায় কাকারা ইউপি সচিবের বিরুদ্ধে অবৈধ টাকা আদায় ও জনসাধারণকে বিভিন্নভাবে হয়রানি করার অভিযোগ উঠেছে। এব্যাপারে বাহাদুর আহমদ রেজা বাদী হয়ে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগটি বর্তমানে উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তার কাছে তদন্তাধীন রয়েছে।

বাদীর অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কাকারা ইউনিয়ন পরিষদের সচিব রশিদ আহমদ দীর্ঘদিন ধরে পরিষদে নাগরিক সেবা নিতে আসা নিরীহ সাধারণ লোকজনের কাছ থেকে নানা অজুহাতে প্রতিনিয়ত উৎকোচ গ্রহণ করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় প্রপার কাকারার ফজল করিম চৌধুরীর পুত্র বাহাদুর আহমদ রেজা একটি পারিবারিক ওয়ারিশী সনদের জন্য গেলে কাকারা ইউপি সচিব রশিদ আহমদ ৫শ’ টাকা উৎকোচ দাবি করে। কিন্তু দাবিকৃত উৎকোচ দিতে না পারায় ৫/৬দিন কালক্ষেপণের পর ২শ’ টাকার বিনিময়ে ওয়ারিশী সনদটি প্রদান করে বলে জানান বাহাদুর আহমদ। একইভাবে ওই সচিব জন্ম নিবন্ধণ কার্ড, জাতীয়তা সনদপত্র, ওয়ারিশী সনদ ও বিভিন্ন সেবা নিতে আসা এলাকার সাধারণ লোকজনের কাছ থেকে ২/৩শ’ টাকা থেকে শুরু করে ১হাজার টাকা পর্যন্ত আদায় করে।

এ বিষয় কেউ প্রতিবাদ করলে তাদের সাথেও অসৌজন্যমূলক আচরণ করে বলে ভুক্তভোগি সূত্রে জানা গেছে। এদিকে সচিব রশিদ আহমদের এহেন অবৈধ কর্মকান্ডে চেয়ারম্যানের প্রত্যক্ষ মদদ রয়েছে বলে এলাকার সচেতন মহলের ধারণা। অন্যদিকে অভিযোগের বিষয়ে জানতে কাকারা ইউপি সচিব রশিদ আহমদের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে মুঠোফোনে সংযোগ পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে অভিযোগের প্রেক্ষিতে দূর্নীতিবাজ ইউপি সচিব বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।