ঝিনাইদহে ঠিকাদারকে শ্বাস রোধ করে হত্যা নেপথ্যে টাকা আত্মসাৎ!

ঝিনাইদহ শহর সংলগ্ন ধানহাড়িয়া উদয়পুরের মাঠ থেকে রোববার সকালে খোন্দকার সুলতান আহম্মেদ (৩৮) নামে এক ঠিকাদারের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত সুলতান আহম্মেদ ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ছোট কামারকুন্ডু গ্রামের মৃত খোন্দকার আব্দুল মজিদের ছেলে।

ঝিনাইদহ সদর থানার উপ-পরিদর্শক নজরুল ইসলাম জানান, রোববার সকাল ১০টার দিকে উদয়পুর গ্রামের কৃষকরা মাঠের পাট ক্ষেতে একটি বস্তাবন্দি লাশ দেখে পুলিশকে খবর দেয়। তিনি আরো জানান, খবর পেয়ে পুলিশ বেলা ১১টার দিকে গলায় ফাঁস লাগানো হাত পা বাঁধা অবস্থায় সুলতানের লাশ উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ জানায়, রোববার একটি ঠিকাদারী কাজের ১৯ লাখ টাকার বিল তোলার কথা ছিল সুলতানের। সুলতান মেহেরপুর এলাকায় লেদগ্রীলের ঠিকাদারী কাজ করতেন। ঠিকাদারী কাজের বিরোধ নিয়ে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে পারে বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে।

নিহতের ভাই জাফর খোন্দকার জানান, শনিবার সন্ধায় চঞ্চল নামে ভুটিয়ারগাতি গ্রামের পরিচিত এক ঠিকাদেরর মোবাইল ফোন পেয়ে সুলতান আহমেদকে বাসা থেকে বের হন। তিনি আরো জানান, এরপর থেকে সে নিখোঁজ ছিল। রাতে আর বাড়িতে ফেরেনি। রোববার ঝিনাইদহ শহরতলীর ধানহাড়িয়া উদয়পুরের মাঠে একটি লাশ পাওয়ার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে দেখেন তার ভাইয়ের লাশ। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সদর থানায় একটি মামলার পক্রিয়া চলছে বলে জানান সদর থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক ফিরোজা কুলসুম।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।