কেন্দুয়ায় হত্যা মামলায় চারজনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড

নেত্রকনো জেলার  কেন্দুয়ার কাপাসিয়া গ্রামের আবদুল গণি (৭০) হত্যা মামলায় চারজনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। সোমবার অতিরিক্ত দায়রা জজ মো. আবদুল হামিদ এ রায় দেন। সাজাপ্রাপ্তরা হলেন- কাপাসিয়া গ্রামের  মো. আমীর হোসেন, কমীর হোসেন, হারুন আর রশিদ ও জামির হোসেন। তারা পরস্পর একে অপরের আপন ভাই এবং সবাই পলাতক।

রায়ে তাদের প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা; অনাদায়ে আরো দুই বছর সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেয়া হয়েছে।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, কাপাসিয়া গ্রামের আবদুল গণির সঙ্গে আমীর হোসেনদের দীর্ঘদিন ধরে গ্রাম্য বিরোধ চলছিল। এরই জের ধরে ২০০০ সালের ১৮ এপ্রিল আবদুল গণি মাঠে জমি দেখতে গেলে আমীর হোসেনসহ ১০ থেকে ১২ জন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তাকে বেধড়ক মারপিট করে।
আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে প্রথমে পার্শ্ববর্তী ময়মনসিংহ জেলার আটারবাড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে চিকিৎসক তাকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতে তিনি মারা যান।
এ ঘটনায় নিহতের ছেলে মো. জাহেদ মিয়া বাদী হয়ে ওই বছরের ২০ এপ্রিল আমীর হোসেনসহ নয়জনকে আসামি করে কেন্দুয়া থানায় হত্যা মামলা করেন।
পুলিশ ওই বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে।
বিজ্ঞ বিচারক মো. আবদুল হামিদ উভয় পক্ষের স্বাক্ষ্য গ্রহণ করে সোমবার দুপুরে এই রায় দেন।
সরকার পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন এপিপি আবদুল কাদির ভূঁইয়া, আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মশিউর আজিজ।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।