কুবিতে নতুন বিভাগ আসছে তবে কাঠামোগত উন্নয়ন হয়নি

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে এবার নতুন তিনটি বিভাগ যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে। বিভাগ তিনটি হল আরকীয়লোজী, ফাইন্যান্স আ্যন্ড ব্যংকিং ও ফারমাসি। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রসাশন থেকে জানা যায় যে, মোট দশটি বিভাগ খোলার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) কাছে আবেদন করা হয়েছিল কিন্তু ইউজিসি তিনটি বিভাগ অনুমোদন করে।

আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে নতুন তিন বিভাগের শিক্ষাকার্যক্রম শুরু করা হবে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রোর (অ.দা.) ড. তৈহিদুল ইসলাম। নুতুন তিনটি বিভাগ চালু হওয়ার প্রক্রিয়া হলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের তেমন কোন অবকাঠামগত উন্নয়ণ হয় নি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সাত বছর পার হলেও পূর্ণতা পায় নি কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়। বিভিন্ন সমস্যায় জজরিত কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন উত্তর, একাডেমিক ভবন দক্ষিন, একাডেমিক ভবন পশ্চিমে চার অনুষদেও শিক্ষাকার্যক্রম চলে। এই তিনটি ভবনে মোট কাসরুম আছে ২৮টি। যদিও একাডেমিক ভবন পশ্চিম ও দক্ষীনের সম্প্রসারনের কাজ চলছে তবে তা শ্রেণীকক্ষের সংকট নিরসনে তেমন কোন অবদান রাখবে না বলে মনে করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাথর্রিা।

বর্তমানে চৌদ্দটি বিভাগে বিভাগ আছে চার অনূষদেও অধীনে। সাতটি শিক্ষাবর্ষে এখন শিক্ষার্থী স্যংখ্যা প্রায় চার হাজার। বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির অবস্থাও নাজেহাল। মাত্র ২৮টি আসন আছে এই লাইব্রেরিতে, বইও পর্যাপ্ত নয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক ব্যবস্থা বর্তমান মিক্ষার্থীদেও প্রয়োজন মেটাতে অক্ষম। এই রকম অবস্থায় নতুন তিনটি বিভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ে সমস্যাগুলোকে বাড়াবে না কমাবে এই নিয়ে উদ্বিগ্ন শিক্ষার্থীরা। একাধিক শিক্ষার্থিরা বলেন, নতুন বিভাগ চালু হলে ভালই হবে। তবে আমাদেও সব সমস্যা সমাধান না হলে শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হবে। এই ুসমস্যার বিষয়ে কথা বললে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অ.দা.) ড. তৈহিদুল ইসলাম বলেন,‘ নতুন বিশ্ববিদ্যালয়ে তারাতারি অবকাঠামগত উন্নয়ণ সম্ভব নয়। আমাদেও ্রকাস রুম সম্প্রসারনের কাজ চলছে আশা করি সমস্যা সমাধান এতে হবে। বাকী সমস্যার সমাধানেও আমরা চেষ্টা টালিয়ে যাচ্ছি। ’

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।