‘ক্রাইসিস টক বা ক্রান্তিলগ্নের আলোচনায়’ মিলিত হয়েছেন সেনা কমান্ডার এবং রাজনীতিকরা

‘ক্রাইসিস টক বা ক্রান্তিলগ্নের আলোচনায়’ মিলিত হয়েছেন সেনা কমান্ডার এবং দেশটির বিভিন্ন রাজনীতিক দলের নেতারা, সঙ্কট সমাধানে সেনাবাহিনীর বেঁধে দেয়া ৪৮ ঘণ্টা সময়ের শেষ প্রান্তে এসে সেনাবাহিনীর ডাকে সাড়া দিয়ে এই আলোচনা সভায় মিলিত হয়েছে। চলমান সঙ্কট নিরসনে সেনাবাহিনীর বেঁধে দেয়া ৪৮ সময় শেষ হতে চলেছে স্থানীয় সময় বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টায়।  ঠিক এর কিছুক্ষণ আগে মিশরের সেনাবাহিনীর জেনারেল কমান্ডারসদের সঙ্গে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় আলোচনায় বসতে যাচ্ছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসি।

বৈঠকে বিরোধী ন্যাশনাল সলভেশন ফ্রন্টের প্রতিনিধি মোহামেদ আল-বারাদি, প্রেসিডেন্ট মুরসির সমর্থক ফ্রিডম অ্যান্ড জাস্টিস পার্টি, নূর পার্টি, আল-আযহার মসজিদের ইমাম এবং কপটিক অর্থডক্স পোপের উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

এদিকে, সেনাবাহিনীর ফাঁস হওয়া রোডম্যাপে প্রেসিডেন্ট মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করা, খসড়া সংবিধান বাতিল এবং একজন জেনারেলকে প্রধান করে একটি নিরপক্ষে সরকার গঠন করার কথা বলা হয়।

রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনার শেষে বেঁধে সময়সীমা পার হয়ে যাওয়ার পর সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে একটি বিবৃতি দেয়া হতে পারে বলে জানা গেছে। আর এতেই নির্ধারিত হতে পারে মিশরীয়দের রাজনৈতিক ভবিষ্যত।

এর আগে মঙ্গলবার জাতির উদ্দেশে দেয়া এক ভাষণে সেনা আল্টিমেটাম এবং পদত্যাগের দাবি প্রত্যাখ্যান করে মিশরের গণতন্ত্র এবং জনগণের দেয়া বৈধতা রক্ষায় প্রয়োজনে জীবন উৎসর্গ করার ঘোষণা দেন প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসি।

প্রতিক্রিয়ায় সামাজিক যোগাযোগ ওয়েবসাইটে দেয়া এক পোস্টে মিশর এবং এর জনগণকে ‘সন্ত্রাসী, চরমপন্থী এবং নির্বোধদের’ হাত থেকে রক্ষায় শেষ রক্তবিন্দু উৎসর্গ করার শপথ নেয় দেশটির সেনাবাহিনী।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।