নির্বাচন কমিশন চাইলে গাজীপুরে সেনা মোতায়েন করতে পারে: তোফায়েল

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেছেন নির্বাচন কমিশন চাইলে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে পারে ।

তিনি বলেন, “নির্বাচন কমিশন চাইলে সেখানে (গাজীপুরে) সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে পারে। তবে আমরা নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে দেখা করেছি। তারা আমাদের জানিয়েছেন সেখানে সেনা মোতায়েনের মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি।”

বৃহস্পতিবার বিকেলে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধান বিরোধী দল বিএনপির সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবির সমালোচনা করে তোফায়েল বলেন, “তারা কিভাবে সেনাবাহিনী চায়। সেনাবাহিনী সেখানে দক্ষতার সঙ্গে কাজ করে দেশ-বিদেশে প্রশংসা অর্জন করেছে। সেই সেনাবাহিনীকে নিয়ে বিএনপি মিথ্যাচার করেছে। তারা ২০০৮ সালে আমরা জয়(মহাজোট) লাভের পরে তারা অভিযোগ করেছিল সেনাবাহিনী আমাদের জিতিয়েছে। এখন সেনাবাহিনী মোতায়েন করলে তারা আবার সেনাবাহিনীকে বির্তকিত করবে। তাছাড়া তাদের সময়েরও কোনো নির্বাচনে সেনা মোতায়েন করা হয়নি। তাহেল এখন তারা কিভাবে সেনা মোতায়েনের দাবি করছেন?”

তিনি বলেন, “আমরা (১৪ দল) সম্পূর্ণ রুপে নির্বাচন কমিশনের আচরণবিধি মেনে চলছি। সেখানে বিএনপি নিজেই আজ আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছে। তাদের কয়েকজন নেতা আজো সেখানে অবস্থান করছেন। মিথ্যা তথ্য দিয়ে তারা বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছেন।”

আওয়ামী লীগের এই প্রবীণ নেতা অভিযোগ করে বলেন, “চারটি সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের মতো গাজীপুরেও ধর্মকে ব্যবহার করে প্রচারণা চালানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।”

তোফায়েল বলেন, “বর্তমান নির্বাচন কমিশন আজিজ মার্কা নির্বাচন কমিশন নয়। প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান সার্চ কমিটি গঠনের ম্যাধমে এ কমিশন গঠন করেছিলেন। এখন এক কোটি ভুয়া ভোটারও নেই। সবার ন্যাশনাল আইডি কার্ড আছে। তারপরও বিএনপির এ অভিযোগের চাইতে অসত্য আর কী হতে পারে!”

নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ট হবে দাবি করে তিনি বলেন, “এ নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে। এখানে বিএনপি যেসব অভিযোগ তুলছে, তা সম্পূ্র্ণ অসত্য, মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। এ ধরনের মিথ্যা অভিযোগ কেবল বিএনপির পক্ষেই আনা সম্ভব।”

এসময় অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. বদিউজ্জামান ভূইয়া ডাবলু, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, উপ-দফতর সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।