গাজীপুর সিটি করপোরেশন (জিসিসি) নির্বাচনের প্রচারণা শেষ, ভোটের অপেক্ষা

বৃহস্পতিবার রাত ১২টা ১ মিনিটে শেষ হয়েছে সময়ের সবচেয়ে আলোচিত গাজীপুর সিটি করপোরেশন (জিসিসি) নির্বাচনের প্রচারণা। এখন ভোটের অপেক্ষা। ইতোমধ্যে নির্বাচন কমিশন থেকে সব প্রস্তুতি সম্পন্নের কথা বলা হয়েছে।

শুক্রবার সকাল থেকে বিভিন্ন ভোটকেন্দ্রে ব্যালট বাক্স পাঠানো হবে। শনিবার সকাল ৮টা থেকে একটানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ করা হবে।

এর আগে বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে গাজীপুর সিটি করপোরেশন এলাকার নিরাপত্তার দায়িত্ব নিয়েছে র‌্যাব, পুলিশের বিপুলসংখ্যক সদস্য। মোড়ে মোড়ে চৌকি বসিয়ে তল্লাশি চালাচ্ছে।

প্রচারণার শেষদিনে বৃহস্পতিবার ব্যস্ত সময় পার করেছেন হেভিওয়েট দুই প্রার্থী ক্ষমতাসীন ১৪ দল সমর্থিত অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খান ও বিরোধী ১৮ দলের প্রার্থী এমএ মান্নান।

এই নির্বাচনে ৭ জন মেয়র প্রার্থী থাকলেও মূল লড়াই হবে এই দুই প্রার্থীর মধ্যে। প্রায় সোয়া ১০ লাখ ভোটার তাদের প্রথম নগরপিতা নির্ধারণে শনিবার রায় দিবেন। তবে ঢাকার নিকটবর্তী হওয়ায় নির্দলীয় এই নির্বাচনে প্রভাব রয়েছে জাতীয় রাজনীতির। দুইজোটের কেন্দ্রীয় নেতারা গিয়ে স্ব স্ব প্রার্থীর পক্ষে ভোট চেয়েছেন।

ফলে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকীবউদ্দীন আহমেদ স্বীকার করতে বাধ্য হয়েছেন, গাজীপুর নির্বাচনকে আর নির্দলীয় স্থানীয় নির্বাচন বলার সুযোগ নেই।

চার সিটিতে ভরাডুবির পর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সামনে এই নির্বাচন অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই। সেটি মানছেন তাদের প্রার্থী আজমত উল্লাহ খান। দোয়াত-কলম প্রতীকের এই প্রার্থী মহাজোটের টানাপোড়েনের চাপে চ্যাপ্টা হওয়ার সঙ্গে দলীয় বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম ইস্যুতে কাবু রয়েছেন।

আর জনরায়ে সারা দেশে যে ইমেজ তৈরি হয়েছে বিরোধী জোটের পক্ষে তা ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ টেলিভিশন প্রতীকের এমএ মান্নানের সামনে। তিনি ১৮ দলীয় জোটের ছাড়াও নিজে স্থানীয় জাতীয় পার্টি ও হেফাজতে ইসলামের সমর্থন পেয়েছেন। তবে তার সামনে চ্যালেঞ্জ নিজের কর্মকাণ্ডের বেশ কিছু বিতর্ক। এখন দেখার বিষয় শনিবার কাকে রেখে কাকে গাজীপুরবাসী তাদের নগরপিতা হিসেবে বেছে নেন?

তবে শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় মেয়র ছাড়াও কাউন্সিলর প্রার্থীরা ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে নিজের পক্ষে সমর্থন আদায়ের চেষ্টা করেছেন। বিরামহীন ছুটেছেন ভোটারদের দ্বারে। দিয়েছেন নানা প্রতিশ্রুতি।

উল্লেখ্য, গাজীপুর সিটি করপোরেশনে ৩৯২টি কেন্দ্রের নির্বাচনে মেয়র পদে সাতজন, ৫৭টি সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪৫৬ জন ও ১৯টি সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১২৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ভোটার সংখ্যা ১০ লাখ ২৬ হাজার ৯৩৮। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার পাঁচ লাখ ২৭ হাজার ৭৭৭ এবং নারী ভোটার রয়েছে চার লাখ ৯৯ হাজার ১৬১ জন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।