বোমা ফাটিয়ে যারা এলাকায় আতংক সৃষ্টি করে তাদের কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা

সোনাগাজী উপজেলার চর দরবেশ ইউনিয়নে উত্তর চর সাহাভিকারী গ্রামে শুক্রবার সকালে শ্রী শ্রী জয়কালীন মন্দিরের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন ও উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের  নবনির্বাচিত  কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা পুলিশ সুপার বলেন বোমা ফাটিয়ে যারা এলাকায় আতংক ও ত্রাস সৃষ্টি করে তাদের কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা। তিনি আরো বলেন হিন্দু মুসলমান একে অন্যের ভাই হিসেবে দলমত নির্বিশেষে যে কোন ধরনের অনুষ্ঠান করতে পারবে। ধর্ম যার যার অনুষ্ঠান সবার। যারা সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতন, মন্দিরে হামলা ও প্রতিমা ভাংচুর করে তাদের কোন ধর্মের প্রতি মায়া নেই। যারা অপরাধী তাদের সংখ্যা সবসময় কম থাকে। এরা সবাই এলাকার কারোনা কারো ভাই বা আত্মীয়স্বজন। এ সব সন্ত্রাসী ও অপরাধীদের বিরুদ্ধে সামাজিকভাবে প্রতিরোধ গড়ে তুলে তাদেরকে প্রশাসনের হাতে তুলে দিতে হবে। যাতে করে তারা আর কোন সন্ত্রাসী কর্মকান্ড না করতে পারে।

তিনি যুদ্ধপরাধীদের বিচারে বিষয়টি উল্লেখ করে বলেন সরকার ৭১ এর মানবতা বিরোধী অপরাধে অভিযুক্তদের বিচার কার্য শক্ত হাতে চালিয়ে যাচ্ছেন। এ বিচারকে কেন্দ্র করে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়ী ঘরে হামলা, অগ্নি সংযোগ , লুটপাট ও নির্যাতন চালাবে এতে হিন্দুদের দোষ কি? তিনি সম্প্রতি সোনাগাজী উপজেলার বিভিন্ন স্থানে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়ী ঘরে হামলা লুটপাট,অগ্নিসংযোগ,নির্যাতন ও বোমা ফাটিয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকদের কে ভয়ভীতি দেখানোর বিষয়টিকে তদন্ত করে দোষীদেরকে গ্রেপ্তার করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সোনাগাজী মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন। এছাড়া তিনি চলমান বিভিন্ন সমস্যা সহ হিন্দুদের ধর্মীয় বিষয় নিয়ে বক্তব্য রাখেন।

স্থানীয় মন্দির কমিটির সভাপতি চন্দেস স্বর মজুমদারের সভাপতিত্বে এবং উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মাষ্টার রাধেশ্যাম দাসের পরিচালনায় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন  হিন্দু বৌদ্ধ ঐক্য পরিষদের ফেনী জেলা সভাপতি এ্যড: প্রিয় রঞ্জন দত্ত, জেলা পূজা  উদযাপন পরিষদের সভাপতি রাজীব খগেশ দাস, সাধারন সম্পাদক শুসেন চন্দ্রশীল , সোনগাজী মডেল থানার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সার্কেল জসিম উদ্দিন, অফিসার ইনচার্জ সুভাষ চন্দ্র পাল, এস আই শ্রীবাস চন্দ্র দাস, উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড: রফিকুল ইসলাম খোকন, সাবেক ইউ,পি চেয়ারম্যান মো: ইলিয়াস, উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য ও উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের বাবু মনিন্দ্র কুমার চৌধুরী প্রমূখ। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারন সম্পাদক বাবু সমর দাস। এছাড়া সভায় উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি মাষ্টার সাহাব উদ্দিন, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আজিজুল হক হিরণ, জামাল উদ্দিন ছোট, নুরুল ইসলাম ভুট্টু, উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক সায়েদ আনোয়ার, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন রানা সহ জেলা উপজেলা ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড আ’লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মী ও হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মপ্রাণ লোকজন।

হিন্দু সম্প্রদায়ের অনুষ্ঠান হলেও  পুরো অনুষ্ঠানে আ’লীগ নেতাকর্মীদের প্রভাব বিস্তার ছিল চোখে পড়ার মত। অনুষ্ঠানটি হিন্দুদের হলেও আ’লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মিলন মেলায় পরিনত হয়। এ যেন এক ভ্রাতৃত্তের অটুট বন্ধন।এভাবে সবাই একসাথে মিলে মিশে থেকে কাজ করলে এলাকাতে কোন প্রকার  আইন শৃঙ্খলার পরিস্থিতি অবনতি ও কোন প্রকার ঘটবেনা।

ছবিতে চর দরবেশে জয়কালী মন্দিরে ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন ও প্রধান অতিথির বক্তব্য দিচ্ছেন পুলিশ সুপার পরিতোষ ঘোষ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।