নাঙ্গলকোটে জাল সনদের মাধ্যমে প্রতারণার অভিযোগ

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে জাল জন্মসনদের মাধ্যমে প্রতারণা ও চাঁদা দাবীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম মাহবুবুর রহমান। তার বাড়ী উপজেলার টুয়া গ্রামে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মাহবুবুর রহমান তার ছেলে রিয়াজ উদ্দিন ও তুলাগাঁও বালিয়াপুর গ্রামের রবিউল হকের মেয়ে রাবেয়া আক্তারের জাল জন্মসনদ তৈরী করে তাঁদের বিয়ে দেয়ার চেষ্ট চালায়। মাহবুবের শশুর আজিয়াপাড়া গ্রামের আবদুল মতিনের মাধ্যমে রিয়াজ ও রাবেয়াকে বিয়ে দেয়ার উদ্দেশ্যে ১১ মার্চ হেসাখাল ইউনিয়ন নিকাহ্ রেজিষ্ট্রার নজরুলের কার্যালয়ে নিয়ে যায়। এ সময় তাদের সঙ্গে থাকা জাল জন্মসনদের কপি প্রদর্শন করে কাবিন রেজিষ্ট্রি করতে নজরুলকে অনুরোধ করে। এতে স্বাক্ষী হিসেবে উপজেলার টুয়া গ্রামের আবুল কাশেম খানের ছেলে জাবেদ আলী খান ও হেসাখাল গ্রামের মোস্তফা মিয়ার ছেলে আলী হোসেনকে উপস্থাপন করে। জন্ম সনদ বুঝে নিয়ে কাবিন রেজিষ্ট্রার বইতে উল্লেখিত স্বাক্ষী দুই জনের স্বাক্ষর গ্রহণের পর রাবেয়ার পিতা রবিউল হক এসে আপত্তি জানায়। তিনি বলেন তার মেয়ে অপ্রাপ্ত বয়ষ্ক এবং প্রকৃত জন্মসনদ দেখিয়ে তার বয়স ১৬ বছর প্রমাণ করে। এতে কাজী তাৎনিক কাবিন রেজিষ্ট্রি স্থগিত করে রাখে। পরবর্তি সময়ে কাবিন সম্পন্ন না করায় মাহবুব কাজী নজরুলের কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবী করে। অন্যথায় মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির হুমকি দেয়। এ ঘটনায় কাজী নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে নাঙ্গলকোট থানায় ১টি জিডি দায়ের করে। যাহার নং- ৫০৬।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।