দাম্ভিকতা,অহংকার ও একগুয়েমি পরিহার করে নির্দলীয় সরকার পুনর্বহাল করুন: প্রধানমন্ত্রীকে ফখরুল

আওয়ামীলীগ সভানত্রেী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার  উদ্দেশে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, “দাম্ভিকতা, অহংকার ও একগুয়েমি পরিহার করে অবিলম্বে সংবিধানে নির্দলীয় সরকার পুনর্বহাল করুন। পদত্যাগ করে নির্বাচনের ব্যবস্থা করুন। জনগণ নির্দলীয় সরকারের পক্ষে ইতিমধ্যে রায় দিয়ে দিয়েছি।” মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। ‘তারেক রহমান ও আগামীর বাংলাদেশ’ নাগরিক সভা এবং সংগ্রামী জীবন নিয়ে দুই দিনব্যাপী এ আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করে ন্যাশনালিস্ট রিচার্স সেন্টার (এনআরসি)।

পাঁচ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর বিজয় প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, “আওয়ামী লীগের দুঃশাসন, দুর্নীতির কারণে তারা জনগণ থেকে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।কারণ তারা জনগণের আশা আকাঙ্ক্ষা পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে। পাঁচ সিটি করপোরেশনে অনেক চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্র করেও সরকার বিজয় ছিনিয়ে নিতে পারেনি।”

আগামী নির্বাচন নিয়ে লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, “আপনি রাষ্ট্রীয় খরচে ৪৩ জনকে নিয়ে আত্মীয়ের বিয়েতে যান তাতে আমাদের আপত্তি নেই।কিন্তু সংবিধানের আলোকে আগামী নির্বাচন হবে বলে যে বক্তব্য দিচ্ছেন তা পরিহার করে জনগণের মনের ভাষা বোঝার চেষ্টা করুন। কারণ আপনারা সংবিধান পরিবর্তন করেছেন যা জনগণ তা চায়নি।”

রাজনীতিবিদ, পুলিশ এবং বিচার বিভাগ সব চেয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত- টিআইবির এমন প্রতিবেদনের বিষয়ে ফখরুল বলেন, “এটা নতুন কিছু নয়। তবে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর দুর্নীতি অতিমাত্রায় বেড়ে গেছে।সরকারের দুর্নীতির কারণে পদ্মা সেতুতে বিশ্বব্যাংক অর্থায়ন বন্ধ করে দিয়েছে। সরকার দুর্নীতিকে উসকে দিচ্ছে।”

তারেক রহমানের রাজনীতিকে ধ্বংস করার জন্য বিভিন্ন সময়ে অপপ্রচার চালানো হয়েছে এমন অভিযোগ করে তিনি বলেন, “যারা তাকে নিয়ে ১/১১র সময় ষড়যন্ত্র করেছে তারা এখন দেশ ছেড়ে চলে গেছে।আর তিনি যে রাজনীতি ধারণ করেন তা আরো শক্তিশালী হচ্ছে।”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক তালুকদার মনিরুজ্জামান মিঞার সভাপতিত্বে এতে আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট মাহবুব হোসেন, ডা. এজেড এম জাহিদ হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. সুকোমল বড়ুয়া, যুবদল সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, রতন চেয়ারম্যান, বাবুল তালুকদার, আরিফুজ্জামান মামুন, প্রমুখ।

পরে ফিতা কেটে আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। দুইদিন ব্যাপী এ প্রদর্শনী শেষ হবে বুধবার বিকেলে।

প্রদর্শনীতে তারেক রহমানের জীবনের বিভিন্ন পর্যায়ের ১৮০টি ছবি স্থান পায়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।