টিআইবির রিপোর্টে বিএনপি নয় আওয়ামী লীগই চিহ্নিত: মোশাররফ

প্রধান বিরোধীদল বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, “ট্রানফারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) মঙ্গলবার বাংলাদেশের রাজনৈতিক দল সবচেয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত বলে যে প্রতিবেদন দিয়েছে তাতে বিএনপিকে নয় আওয়ামী লীগকেই চিহ্নিত করা হয়েছে।”
বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে মেঘনা উপজেলা জাতীয়তাবাদী যুব ফোরাম আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোশাররফ একথা বলেন।
সংগঠনের সভাপতিত্বে অ্যাডভোকেট হাবীব মিয়াযীর সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য দেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ড. খন্দকার মারুফ হোসেন শিশির, কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপি নেতা ফজলুল হক, মেজবাহ উদ্দীন বায়েজিদসহ কুমিল্লা ও মেঘনা এলাকার নেতারা।

তিনি বলেন, “রাজনৈতিক দল যদি দুর্নীতি করে তাহলে দলকে ক্ষমতায় থাকতে হয়। আর এক্ষেত্রে আওয়ামী লীগই ক্ষমতায় রয়েছে। এর আগে আওয়ামী লীগের আমলে দেশ দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন। আর এবার হয়েছে রাজনৈতিক দুর্নীতিতে শীর্ষ।”

মোশাররফ হোসেন বলেন, “চার বছরেও সরকার দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনি। জনগণের পকেট লুট করার জন্য সরকারের ছত্রছায়ায় একটি সিন্ডিকেট রমজানকে সুযোগ হিসেবে নিয়েছে। তারা এক সপ্তাহ আগেই লাগামহীনভাবে লাফিয়ে লাফিয়ে দ্রব্যমূল্য বাড়িয়েছে।”

তিনি বলেন, “আওয়ামী লীগ সরকারের কারণেই আগামী নির্বাচন অনিশ্চিত। যদি সরকার দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের চেষ্টা করলে বিএনপি সেই নির্বাচনে অংশ নেবে না। আওয়ামী লীগ সরকার সংবিধান থেকে তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থা বাতিল করেছে। এই সরকারের জোট বুঝতে পেরেছে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে জনগণ তাদের প্রত্যাখান করবে। তাই তারা আগেই তত্ত্বাবধায়ক বাতিল করেছে।”

সরকারকে উদ্দেশ্য করে মোশাররফ বলেন, “আর কোনো লুকোচুরি ও ধানাইফানাই না করে আগামী নির্বাচন সূষ্ঠু করার উদ্যোগ গ্রহণ করেন। দৈনিক প্রথম আলোর পর জাতীয় পার্টি দলীয়ভাবে একটি জরিপ করেছে। সেখানেও তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা গুরুত্ব পেয়েছে। অতএব সময় থাকতে জনগণের মতকে মেনে নিন।”


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।