কোটাবিরোধী আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের দাবি বিবেচনা নেওয়ার আহ্বান : ছাত্রদলের

কোটাবিরোধী আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের দাবি বিবেচনা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল নেতারা অভিযোগ করে বলেছেন, সরকার  জনপ্রশাসনকে মেধাশূন্য করতে চায়।

ছাত্রদল নেতারা অবিলম্বে ৫৬ ভাগ কোটা পদ্ধতির ‘সুষ্ঠু বিন্যাস’ করার আহ্বান জানান।

শুক্রবার বিকেলে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে  ছাত্রদল নেতারা এসব কথা বলেন।

ছাত্রদলের সভাপতি আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল বলেন, ‘সরকার জনপ্রশাসনকে মেধাশূন্য করতে চায়। তারা ক্ষমতায় আসার পর বিসিএস নিয়ে  তুঘলকি কাণ্ডের জন্ম দিয়েছে।’

কোটাবিরোধীদের দাবি মেনে নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সময় এসেছে ৫৬ ভাগ কোটা পদ্ধতি সুষ্ঠু বিন্যাস করার।’

এ সময় আন্দোলন করতে গিয়ে যে  ১৭ জন ছাত্রকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের মুক্তি দাবি করেন ছাত্রদল সভাপতি।

এছাড়া বৃহস্পতিবার কোটাবিরোধী শিক্ষার্থী ওপর ছাত্রলীগ ও পুলিশ বাহিনীর হামলার নিন্দা জানিয়ে দোষীদের শাস্তির দাবি জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রশিদ হাবিব বলেন, ‘বর্তমান জনবিচ্ছিন্ন আওয়ামী সরকার শিক্ষার্থীদের ন্যায দাবি-দাওয়া বিবেচনায় না এনে তাদের ওপর পুলিশ ও ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দিয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘এই শাহবাগেই তথাকথিত গণজাগরণের মঞ্চকে সরকার মাসের পর মাস পৃষ্ঠপোষকতা দিয়েছে। অথচ এই দেশের ভবিষ্যত কর্ণধারদের নায্য দাবির প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে তাদের ওপর অমানবিক নির্যাতন করা হয়েছে।’

হাবিবুর রশিদ হাবিব বলেন, ‘এই  ধরনের ঘটনা সরকারের কেবল অদূরদর্শিতাই নয়, বরং তা রাষ্ট্র ও জনপ্রশাসনকে মেধাশূন্য করার এক সুদূরপ্রসারী ষড়যন্ত্র।’

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, সহ-ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক সুলতান সালাহ উদ্দিন টুকু, ছাত্রদলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল হক নাসির, সাংগঠনিক সম্পাদক রাজিব আহসান প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।