লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছেন ফখরুল

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর যুক্তরাজ্যসহ অন্যান্য গণতান্ত্রিক দেশের পদ্ধতিতে বাংলাদেশেও আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে- লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া এমন বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছেন । তিনি বলেন, জনগণ ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে সরকারকে নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে বাধ্য করবে।

শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর একটি হোটেলে খেলাফত মজিলস আয়োজিত ইফতার মাহফিলে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘আপনি বিলেতে গিয়ে বলেছেন ওই দেশের নিয়মে বাংলাদেশে নির্বাচন হবে। আপনি বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় কী এমন পরিবর্তন এনেছেন?’

‘বিলেতে দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন সম্ভব। কারণ ওইসব দেশে বিরোধীদলীয় নেতার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা হয় না। বিরোধী নেতাদের ময়লার গাড়ি ভাঙচুর মামলায় জেলে যেতে হয় না। ইলিয়াস আলীর মতো জনপ্রিয় নেতাকে গুম হতে হয় না’ যোগ করেন ফখরুল।

তিনি বলেন, ‘পশ্চিমা দেশগুলোতে বিচার বিভাগ, নির্বাচন কমিশন এবং প্রশাসন নিজেদের মতো করে কাজ করে। এতে সরকার কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করে না।’

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, ‘আমাদের ওপর কৌশলে ভিন্ন চিন্তা ও সংস্কৃতি চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। পাঁচ সিটি নির্বাচনে জনগণ তার জবাব দিয়েছে। জনগণ জেগে ওঠেছে, তারা ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে নির্দলীয় সরকারের দাবি আদায় করবে।’

তিনি বলেন, ‘সিটি নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থীদের জয়ী করে জনগণ সরকারের ওপর গণঅনাস্থা জ্ঞাপন করেছে। সরকার অনেক চেষ্টা করেছে তাদের সমর্থিত প্রার্থীদের জয়ী করতে, কিন্তু জনগণের প্রতিরোধের মুখে তা সম্ভব হয়নি।’

খেলাফত মজলিসের আমির মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাকের সভাপতিত্বে এতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, এলডিপির মহাসচিব ড. রেদওয়ান আহমেদ, জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, বাংলাদেশ ন্যাপের সভাপতি জেবেল রহমান গাণি, সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়াসহ ১৮ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ।

ইফতারের আগে দেশ ও জাতির কল্যান কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।