সংঘাতের পথ পরিহার করে সমঝোতার পথে আসতে সরকারের প্রতি আহ্বান মওদুদের

সংঘাতের পথ পরিহার করে সমঝোতা পথে আসতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, “সমঝোতার পথে না আসলে আওয়ামী লীগ রাজনীতির মূল স্রোতধারা থেকে দূরে সরে যাবে।আগের মতো এবারও তারা হারিয়ে যাবে।” শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার পরিষদ আয়োজিত ‘সংশোধিত সন্ত্রাস বিরোধী আইন ও জনগণের নাগরিক অধিকার’ শীর্ষক এক জাতীয় সেমিনারে তিনি একথা বলেন।

‘দেশকে পুলিশি রাষ্ট্রে পরিনত করতে সরকার সন্ত্রাস বিরোধী আইন করেছে’ এমন মন্তব্য করে মওদুদ বলেন, “এ আইনে পুলিশকে এতো বেশি ক্ষমতা দেয়া হয়েছে যা সরকারও নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে না।এটা সংবিধান ও গণবিরোধী আইন।”

তিনি বলেন, “পাঁচ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে হারের পর্ এখন সরকার জোর করে ক্ষমতায় থাকার চেষ্টা করতে পারে।কিন্তু আমরা বলতে চাই, যতই কলাকৌশল করেন না কেন কোনো কাজ হবে না। নির্দলীয় সরকার ছাড়া নির্বাচন দেয়ার বিকল্প সরকারের কাছে নেই। কারণ জনগণ পরিবর্তন চায়।”

তিনি সরকারের উদ্দেশে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, “জোর করে ক্ষমতায় থাকার কোনো কৌশল করলে আপনারা রাজনীতির মূল স্রোতধারা থেকে হারিয়ে যাবেন, অনেক পিছিয়ে যাবেন। তাই এই সংসদ ভেঙে দেয়ার আগেই নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা পূনর্বহাল করুন। এজেন্ডা ঠিক করে আলোচনায় আসুন, আমরা সহযোগিতা করবো।”

মওদুদ বলেন, “আমার মনে হয়, সরকার সংঘাতের পথে যাবে না।কারণ সংঘাতের পথে গেলে তাদের আর খূঁজে পাওয়া যায় না।”

সংগঠনের সভাপতি আমজাদ হোসেনের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন যুবদল সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, বিএনপির সহ তথ্য-গবেষণা সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, এলডিপির যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, স্বাধীনতা ফোরামের সভাপতি আবু নাসের মো. রহমাতুল্লাহ প্রমুখ।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।