আমি নয় দুই নেত্রীই প্রতিহিংসার রাজনীতি করে: এরশাদ

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেন, “আমি প্রতিহিংসার রাজনীতি করি না। দুই নেত্রী প্রতিহিংসার রাজনীতি করেন।” রোববার দুপুরে রংপুরের মাহিগঞ্জ কলেজের একাডেমিক ভবন উদ্বোধন ও নবীনবরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

কলেজ সভাপতি অধ্যাপক আরিফুল হক রুজুর সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য  মসিউর রহমান রাঙ্গা, সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম ফখর-উজ-জামান জাহাঙ্গীর, রংপুর মহানগর সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট সালাহউদ্দিন কাদেরী প্রমুখ।
এরশাদ বলেন, “শিক্ষার্থীদের কঠোর অধ্যবসায়ের মাধ্যমে যুগোপোযোগী শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় এগিয়ে আসতে হবে। দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ বিনির্মাণে সৎ নেতৃত্বের কোনো বিকল্প নেই।”
তিনি বলেন, “আমি আজীবন সত্যের পথে লড়েছি। আমাকে জেলে যেতে হয়েছে। রংপুরের মানুষ তাদের ভালোবাসা দিয়ে আমাকে জেল থেকে মুক্ত করেছে। রংপুরের মানুষের ঋণ আমি কখনই, কোনোভাবেই শোধ করতে পারবো না। এবার সময় এসেছে ক্ষমতায় যাওয়ার। মানুষ বিএনপি ও আওয়ামী লীগ কোনো দলকেই পছন্দ করে না। তাদের দুর্বৃত্তায়নে মানুষ অতিষ্ঠ। সে জন্য তারা বিকল্প হিসেবে সত্য ও ন্যায়ের প্লাটফরম হিসেবে জাতীয় পার্টিকে বেছে নিতে চায়।”
তিনি আরো বলেন, “আমি কখনো প্রতিহিংসার রাজনীতি করিনি। করবোও না। বড় বড় দুই দল এখন শুধু প্রতিহিংসার রাজনীতি নিয়ে ব্যস্ত। ফলে দেশের অবস্থা বড়ই নাজকু। এই অবস্থার উত্তরণে জাতীয় পার্টি এখন জনগণের কাছে একমাত্র ভরসার পাত্র।”
রোববার বিকেলে তিনি রংপুর টাউন হলে জাতীয় পার্টির কর্মী সম্মেলনে বক্তব্য রাখবেন।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।