জনমত উপেক্ষার চেষ্টা করলে সরকারকে চরম মূল্য দিতে হবে: ড. খন্দকার মোশাররফ

জনমত উপেক্ষা করে ভিন্ন উপায়ে নির্বাচনের চেষ্টা করা হলে সরকারকে চরম মূল্য দিতে হবে বলে হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেছেন বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য এবং মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি বলেন, দূর্নীতি, ব্যর্থতা ও অপশাসনের কারণে জনগণ তাদেরকে প্রত্যাখান করেছে। ৫টি সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন তার জলন্ত উদাহরণ। দেশের ৯০ ভাগ মানুষ নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থার পে অবস্থান নিয়েছে। এটি এখন জাতীয় দাবি। অথচ এই জনমতকে গুরুত্ব না দিয়ে সরকার তাদের অধীনে নির্বাচন করতে চায়। প্রধানমন্ত্রী এবং আ.লীগ নেতারা দুরভিসন্ধিমূলক বক্তব্য দিয়ে বেড়াচ্ছে। জনগণের দাবিকে উপো করে কোন পাঁতানো নির্বাচনের অপচেষ্টা হলে সরকারকে চরম মূল্য দিতে হবে।

ড. মোশাররফ আজ সোমবার কুমিল্লার গৌরীপুর সরকারী ডিগ্রী কলেজ মাঠে দাউদকান্দি উপজেলা বিএনপি’র ইফতারপূর্ব আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, সারাদেশে জনবিস্ফোরণ দেখে সরকার বেসামাল হয়ে পড়েছে। তারা বিরোধী দলকে দমনের পাশাপাশি কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীদের ওপর চড়াও হয়েছে। বিসিএস পরীায় কোটা পদ্ধতি বাতিলের দাবিতে আন্দোলনরত ছাত্র-ছাত্রীদের যৌক্তিক দাবি বিবেচনায় না এনে তাদের ওপর পুলিশ ও ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দিয়েছে। অপরদিকে সরকার শাহবাগে গণজাগরণ মঞ্চকে পৃষ্টপোষকতা করছে। এটি জাতির জন্য দূর্ভাগ্যজনক। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থায় সরকার এটা করতে পারে না।

ড. মোশাররফ বলেন, সীমাহীন দুর্নীতির কারণে বিদেশীরাও সরকারের কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। পদ্মা সেতুর অর্থায়ন বন্ধ ও জিএসপি সুবিধা বাতিল এই সরকারের অপকর্মেরই ফল। বর্তমানে দেশে কোন উন্নয়ন হচ্ছে না। বৈদেশিক বিনিয়োগ নেই। তারা দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করে দিয়েছে। সর্বত্র এক শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। বর্তমান সরকার জগদ্দল পাথরের ন্যায় জনগণের বুকের ওপর চেপে বসে আছে। তারা যত দ্রুত বিদায় নেবে, জাতির জন্য ততই মঙ্গল হবে। ড. মোশাররফ তার বক্তৃতায় ফ্যাসিস্ট সরকারে পতন ও তত্ত্বাবধায়ক পুনর্বহালের দাবি আদায়ের আন্দোলনে শরিক হতে এখনই প্রস্তুতি নিতে সকলের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান।

দাউদকান্দি উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি একেএম শামসুল হকের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন, দাউদকান্দির মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ, বিএনপি নেতা শাহজাহান চৌধুরী, সাইফুল আলম ভূইয়া, আবুল হাসেম চেয়ারম্যান, নূর মোহম্মদ সেলিম, আলহাজ্ব আব্দুস সাত্তার, এম আব্দুস সাত্তার, আহাম্মদ হোসেন তালুকদার, যুবদল নেতা ভিপি জাহাঙ্গীর আলম মোঃ আলমগীর হোসেন সজিব, কৃষকদল নেতা এ.আর মাহবুবুল হক, ছাত্রদল নেতা ভিপি মেহেদী হাসান সজিবও ভিপি সাহাবুদ্দিন ভূঁইয়া প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।