জামায়াতের সকাল-সন্ধ্যা হরতাল: রায়পুরে বিক্ষোভ, যানবাহন ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ

জামায়াত নেতা গোলাম আযমের যুদ্ধপরাধী বিচারের রায়ের প্রতিবাদে মঙ্গলবার (১৫ জুলাই) লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলা জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ, টায়ার জ্বালিয়ে অগ্নিসংযোগ ও কয়েকটি যানবাহন ভাংচুরের মধ্য দিয়ে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল শুরু করেছেন। এসময় হাজী রফিকুল ইসলাম ও মোঃ মফিজ নামের দুই জন আহত হয়।
সকাল ৬টায় পিকেটাররা রায়পুর-লক্ষ্মীপুর মহা-সড়কের বাস টার্মিনাল এলাকায় টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে, বৈদ্যুতিক খুঁটি ফেলে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। এছাড়াও রায়পুর-হায়দরগঞ্জ সড়কের সোলাখালি ব্রীজ, রায়পুর-চাঁদপুর সড়কের বর্ডার এলাকা, রায়পুর-রামগঞ্জ সড়কের জোড়পুল এলাকা ও রায়পুর-মীরগঞ্জ সড়কের মীরগঞ্জ বাজারে সড়ক অবরোধ করে ৪টি মোটর সাইকেল, সিএনজি, ২টি ট্রাক ও ১টি মিনিবাস ভাংচুর করে।
সকাল ১০টায় বাস টার্মিনাল এলাকায় টিএন্ডটি কার্যালয়ের সামনে থেকে জামায়াত নেতা শাহজাহান পাটওয়ারী ও শিবির নেতা ফজলুল করিমের নেতৃত্বে প্রায় ২ শতাধিক নেতাকর্মী নিয়ে শহরের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ প্রদক্ষিণ করে।
পরে বাস টার্মিনাল এলাকায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারী শাহাজাহান পাটওয়ারী, পৌর জামায়াতের আমির  মাষ্টার ইসমাইল, সেক্রেটারি নুরুল আমিন দেওয়ান, জামায়াত নেতা ফজলুল করিম, আবুল কাশেম, উপজেলা শিবির সভাপতি ফজলুল করিম, কলেজ শাখার সভাপতি সালাউদ্দিন রুমি ও সেক্রেটারি ইব্রাহিম খলিল প্রমূখ।
রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাসেম চৌধূরী জানান, জামায়াত-শিবিরের ডাকা হরতালে সব ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ তৎপর রয়েছে। ২-১ জায়গায় বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটলেও পুলিশ তাৎক্ষনিক গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।