সারাদেশে সংঘর্ষ-ভাংচুর,কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে হরতাল চলছে

সারা দেশে কড়া নিরাপত্তায় শুরু হয়েছে জামায়াতে ইসলামীর সকাল-সন্ধ্যা হরতাল। ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে বিচারের নামে নেতৃবৃন্দকে হত্যা করে দলকে নিশ্চিহ্ন করার সরকারি ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে রবিবার এই হরতাল কর্মসূচি দেয় জামায়াত। হরতালের দিনে দলটির সাবেক আমির অধ্যাপক গোলাম আযমের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার রায় ঘোষণা করা হবে।

হরতালের শুরুতে সোমবার রাজধানীর ঢাকার সায়েদাবাদ-যাত্রাবাড়ী এলাকায় পুলিশের সঙ্গে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। এতে ৫ সাংবাদিক গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। এ সময় কমপক্ষে ১০টি যানবাহন ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সোমবার ভোরে যাত্রাবাড়ী এলাকায় হরতালের সমর্থনে মিছিল বের করে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা। মিছিলটি সায়েদাবাদের দিকে আসতে থাকলে পুলিশ বাধা দেয়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে দলটির নেতাকর্মীরা।

প্রায় ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ফাঁকা গুলি, রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল ছোড়ে। জামায়াত-শিবিরের কর্মীরা ইট-পাটকেল ছুড়ে প্রতিরোধের চেষ্টা করে। এ সময় পুলিশের রাবার বুলেটে ৫ সাংবাদিকসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। সংঘর্ষের এক পর্যায়ে ১০টি যানবাহন ভাঙচুর করা হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে চার শিবিরকর্মীকে আটক করেছে।

হরতালে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে সোমবার ভোর থেকেই রাজধানীর প্রতিটি সড়কে অবস্থান নিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুলসংখ্যক সদস্য।

সকাল থেকেই রাজধানীতে রিক্সা ও অটোরিক্সা চলাচল করছে। সংখ্যায় কম হলেও রাস্তায় গণপরিবহন চলতে দেখা গেছে। গাবতলী, মহাখালী ও সায়েদাবাদ থেকে দূরপাল্লার কোনো বাস রাজধানী ছেড়ে যায়নি। তবে রেল ও লঞ্চ চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

আমাদের কুষ্টিয়া প্রতিনিধি জানিয়েছেন, হরতালের শুরুতে ভোরে রাস্তায় গাছে গুড়ি ফেলে প্রতিবন্ধকতা তৈরির চেষ্টা করে জামায়াত-শিবিরের কর্মীরা। এ সময় পুলিশ ও আওয়ামী লীগের কর্মীরা তাদের ধাওয়া করে ধরে ব্যাপক মারধর করে। এতে গুরুতর আহত দুই কর্মীকে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

আমাদের বগুড়া প্রতিনিধি জানিয়েছেন, হরতালের শুরুতে জেলার বিভিন্ন স্থানে পুলিশের সঙ্গে জামায়াত-শিবিরকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় অন্তত ৫০টি যানবাহন ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। পুলিশ এসব ঘটনায় দুজনকে আটক করেছে।

রাজশাহী প্রতিনিধি জানান, শহরের বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ, যানবাহন ভাঙচুরের মধ্যদিয়ে হরতাল শুরু হয়েছে।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।