মোজাহিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ মামলায় পাঁচটি অভিযোগ প্রমাণিত

একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলায় জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মুহাম্মদ মোজাহিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ মামলায় পাঁচটি অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের সময় হত্যা, গণহত্যা, অপহরণ, অগ্নিসংযোগ, লুটপাটের মতো মানবতাবিরোধী অপরাধের সাতটি ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে জামায়াত নেতা মুজাহিদের বিরুদ্ধে। এর মধ্যে পাঁচটি অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। তবে ২ নম্বর অভিযোগ প্রমাণ হলেও এতে মুজাহিদের সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ মেলেনি।

আজ বেলা ১১টা পাঁচ মিনিটে আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদের মামলার রায় পড়া শুরু হয়।  ট্রাইবুনাল-২ এ রায় পড়া চলছে। ২০৯ পৃষ্ঠার ৬৫ প্যারার রায়ে সারসংক্ষেপ ৩৭ পৃষ্ঠা পড়ে শোনানো হবে। এর আগে আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদকে সকাল নয়টা ৪৫ মিনিটে ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মঙ্গলবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে তাকে ঢাকায় কেন্দ্রীয় কারাগারে আনা হয়। বুধবার তার রায় ঘোষণার আগের দিন তাকে ঢাকায় আনা হলো।

২০১০ সালের ২৯ জুন আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ওই বছর ২ আগস্ট তাকে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়। গত বছরের ১২ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ কারাগারে আনা হয় মুজাহিদকে। এর পর থেকে তাকে এ কারাগার থেকেই ঢাকায় আনা-নেয়া করা হতো।

নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারের সুপার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, সন্ধ্যা ছয়টায় কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থায় মুজাহিদকে একটি প্রিজন ভ্যানে করে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।