তারেক রহমান শিগগিরই দেশে ফিরছেন: মির্জা ফখরুল

শুক্রবার ভোরে সফর শেষে লন্ডন থেকে ঢাকা ফিরেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি কুয়েত এয়ারলাইনসের একটি বিমানে ভোর ভোর ৪টায় হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন।
বিমানবন্দরে মির্জা ফখরুল সাংবাদিকদের বলেন, চিকিৎসকের পরামর্শে বিএনপির জ্যেষ্ঠ ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমান সুস্থ হয়ে শিগগিরই দেশে ফিরবেন। তিনি জানান, ‘লন্ডনে তারেক রহমানের সঙ্গে আমার দেখা হয়েছে। তার স্বাস্থ্যের অবস্থা জেনেছি। তার শারীরিক অবস্থার অনেকটা উন্নতি হয়েছে। পুরোপুরি সুস্থ হয়ে তিনি শিগগিরই দেশে ফিরে আসবেন।’

তবে শিগগিরই রাজনীতিতে সক্রিয় হওয়া নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিষয়টি সম্পূর্ণভাবে তারেকের চিকিৎসকদের পরামর্শের ওপর নির্ভর করছে।’

যুক্তরাজ্যে মির্জা ফখরুল ‘বাংলাদেশের মানবাধিকার, গণতন্ত্র ও সুশাসন’ শীর্ষক এক আন্তর্জাতিক সেমিনারে অংশ নেন। এই সফের তিনি তারেক রহমানের সঙ্গে দেখা করেন। তাদের দুজনের সীমিত সময়ের ওই বৈঠকে দেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি, কাউন্সিল ঘিরে দলের অবস্থা নিয়ে আলোচনা হয়।

এ প্রশ্নে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বৈঠকে তারেক রহমান বর্তমান রাজনীতির খবর জানতে চেয়েছেন। তাকে তা জানিয়েছি।’ তবে আগামী নির্বাচনে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী মনোনয়ন নিয়ে আলোচনার কথা অস্বীকার করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘এটি সঠিক সংবাদ নয়। আমাদের গণমাধ্যম মাঝে মধ্যে মনের মাধুরী দিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেন, যার সঙ্গে বাস্তবতার কোনো মিল নেই। আমি কোনো কাগজ নিয়ে নিয়ে তার কাছে যাইনি।’

আন্তর্জাতিক এই সেমিনারে যোগ দিতে গত সোমবার লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছিলেন মির্জা ফখরুল। তার সফরসঙ্গী ছিলেন- বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান শমসের মুবিন চৌধুরী, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার নাসিরউদ্দিন অসীম ও ব্যারিস্টার নওশাদ জমির।

সফরে গত বুধবার হাউস অব লর্ডসে ‘বাংলাদেশের মানবাধিকার, গণতন্ত্র ও সুশাসন’ শীর্ষক সেমিনারে বক্তব্য দেন মির্জা ফখরুল।

সেমিনারে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের আট সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল অংশ নেয়, যার নেতৃত্ব দেন প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচটি ইমাম।

সেমিনার প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আন্তর্জাতিক সেমিনারে বাংলাদেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি, আগামী নির্বাচনের ভবিষ্যৎ, সংখ্যালঘু পরিস্থিতি প্রভৃতি বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘বৃটেন গণতন্ত্রের সূতিকাগার এবং তারা আমাদের একটি উন্নয়ন সহযোগী দেশ। বিশ্ব জনমতের কাছে আমাদের দেশের রাজনীতি ও বর্তমান অবস্থা আমরা তুলে ধরেছি। ওই সেমিনারে আমরা নির্দলীয় সরকারের প্রাসঙ্গিকতাও উপস্থাপন করেছি।’

সরকার বাস্তবতা উপলব্ধি করে সঠিক সময়ে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি মেনে নেবে বলেও আশাপ্রকাশ করেন বিএনপির এই ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব।

তবে দলের অন্য নেতাদের মতো তিনিও মানবতাবিরোধী অপরাধের রায়ের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।