চৌদ্দগ্রামে ছাত্রলীগ নেতার হাতে চাচাতো ভাই খুন, দোকানে আগুন

চৌদ্দগ্রামে পানি নিস্কাশনের জায়গা নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রকাশ্যে পিটিয়ে এক যুবককে হত্যা করেছে অপর যুবক। নিহত যুবকের নাম আবদুল মোতালেব। শুক্রবার রাতে ঢাকায় নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। উত্তেজিত জনতা অভিযুক্ত যুবকের ফার্মেসী দোকান জ্বালিয়ে দিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, উপজেলার আলকরা ইউনিয়নের বান্দেরজলা গ্রামের আইয়ুব আলীর ছেলে মুদি দোকানী আবদুল মোতালেব (৩০) এর সাথে চাচাতো ভাই ছাত্রলীগ নেতা সোহেল হোসেন বিজয়ের বাড়ির পানি নিস্কাশনের জায়গা নিয়ে বিরোধ চলছিল।

এরই জের ধরে শুক্রবার বিকেলে স্থানীয় দোকানের সামনে বিজয় লাঠি দিয়ে মোতালেবের মাথায় আঘাত করলে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। স্থানীয় লোকজন মোতালেবকে উদ্ধার করে ফেনী সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা নেয়ার পথে রাতে তার মৃত্যু হয়।

মোতালেবের নাহিদ নামের তিন বছর বয়সী এক ছেলে সন্তান রয়েছে। তার মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। উত্তেজিত জনতা রাতেই ছাত্রলীগ নেতার মালিকানাধীন একটি ফার্মেসী দোকান জ্বালিয়ে দিয়েছে। ঘটনার পর থেকে বিজয় ও তার পরিবারের লোকজন পলাতক রয়েছে।

এব্যাপারে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা সোহেল হোসেন বিজয়ের (০১৮১৫২২৬২৯২) মোবাইল বন্ধ থাকায় বারবার চেষ্টা করেও তার বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।

চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইসমাইল মিঞা মারামারির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আহত হওয়ার পর ওই যুবককে চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে গেলে তার মৃত্যু হয়। তবে এ নিয়ে কেউ এখনও অভিযোগ করেনি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।