শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
spot_img
Homeজাতীয় ‘কোনো দল বা ব্যক্তিকে নির্বাচনের বাইরে রাখা নির্বাচন কমিশনের লক্ষ্য নয়।’:...

‘কোনো দল বা ব্যক্তিকে নির্বাচনের বাইরে রাখা নির্বাচন কমিশনের লক্ষ্য নয়।’: সিইসি

যুদ্ধাপরাধ মামলায় দণ্ডিত জামায়াতে ইসলামীর নেতাদের ভোটার তালিকা থেকে বাদ দিতে নির্বাচন কমিশন যে উদ্যোগ নিয়েছে তাকে ‘সংবিধানবিরোধী ও মানবাধিকার পরিপন্থী’ বলে মন্তব্য করেছে জামায়াত । রবিবার জামায়াতে ইসলামের একটি প্রতিনিধি দল প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দিন আহমদের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের একথা বলেন।

জামায়াতের অভিযোগের জবাবে কাজী রকিবউদ্দিন আহমদ বলেন, ‘কোনো দল বা ব্যক্তিকে নির্বাচনের বাইরে রাখা নির্বাচন কমিশনের লক্ষ্য নয়।’

তিনি বলেন, ‘সব দলের অংশগ্রহণে সুষ্ঠু নির্বাচন করাই ইসির লক্ষ্য।’

জামায়াতের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট জসিম উদ্দীন সরকার সিইসির কাছে ভোটার তালিকা থেকে নাম বাদ দেয়া ও জনপ্রতিনিধিত্ব আইন সংশোধনী বিষয়ে লিখিত আবেদন জমা দেন।

এতে বলা হয়, সংবিধান ও আইনবহির্ভূতভাবে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতাদের ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেয়ার যে সুপারিশ করা হয়েছে তা ‘সংবিধানবিরোধী ও মানবাধিকার পরিপন্থী’।

আবেদনে বলা হয়, ‘বিদ্যমান রাজনৈতিক অস্থিরতা নিরসনকল্পে অবিলম্বে এ অপিরণামদর্শী সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার অনুরোধ করেছি।’

এ বিষয়ে সিইসি সাংবাদিকদের জানান, আইনের আলোকেই নির্বাচন কমিশন সব ব্যবস্থা নিচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘জামায়াত যে বক্তব্য দিয়েছে, তার আরো আইনি ব্যাখ্যা দিতে তাদের বলেছি। আমরা তাদের বলেছি- সব দলের অংশগ্রহণে সুষ্ঠু নির্বাচন করাই আমাদের লক্ষ্য। কাউকে বাদ দেয়ার জন্যে কিছু করিনি। কোনো দল বা ব্যক্তিকে টার্গেট করে কিছু করি না আমরা। আইন মোতাবেক কাজ করতে হয় আমাদের।’

ভোটার তালিকা থেকে যুদ্ধাপরাধ মামলায় দণ্ডিতদের নাম বাদ দিতে গত সপ্তাহে কমিশনের সভায় আইন সংশোধনের সিদ্ধান্ত হয়।

নির্বাচন কমিশনার মো. শাহনেওয়াজ ওইদিন সাংবাদিকদের বলেন, ‘ভোটার তালিকা আইন, ২০১৩ সংশোধনের জন্য মন্ত্রণালয়ে পাঠাব। আইনে পরিণত হলে দণ্ডিত মানবতাবিরোধী অপরাধীরা ভোটার তালিকা থেকে বাদ যাবে। নতুন করে কোনো দণ্ডিত তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হতে পারবেন না।’

ইসির আইন সংশোধনের প্রস্তাব আইন মন্ত্রণালয়ের ভোটিং শেষে মন্ত্রিসভার বৈঠকে অনুমোদন পেলে তা পাসের জন্য জাতীয় সংসদে তোলা হবে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments