রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
spot_img
Homeজেলাচট্টগ্রামের অপহৃত স্কুল ছাত্রী ১মাস পর সোনাগাজী থেকে উদ্বার ॥ গ্রেফতার-২

চট্টগ্রামের অপহৃত স্কুল ছাত্রী ১মাস পর সোনাগাজী থেকে উদ্বার ॥ গ্রেফতার-২

চট্টগ্রাম জেলার কোতয়ালী থানাধীন জেমসং হাই স্কুলের অপহৃত স্কুল ছাত্রী চুমকী ধর (১৫) কে রবিবার দুপুরে সোনাগাজী উপজেলার চর মজলিশপুর ইউনিয়নের চর গোপাল গাঁও গ্রাম থেকে অপহরণের একমাস পর উদ্বার করেছে পুলিশ।
পুলিশ ও সংশ্লীষ্ট সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রামের কোতয়ালী থানাধীন ফিরীঙ্গি গ্রামের সুনিলধরের মেয়ে স্থানীয় জেমসং হাই স্কুলের নবম শ্রেণীর ছাত্র চুমকী ধর (১৫) এর সাথে সোনাগাজী উপজেলার চর গোপাল গাঁও গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে বেলাল হোসেন (২২) এর সাথে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পরিচয় হয়। পরিচয়ের এক পর্যায়ে দীর্ঘদিন তারা একে অপরের সাথে মোবাইল ফোনে কথা বলতে থাকে। কথা বলতে বলতে একে অন্যের সাথে প্রেমের বন্ধনে আবদ্ধ হয়। প্রেমের সূত্র ধরেই তারা একে অন্যকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি ও প্রতিজ্ঞা করে। চুমকী ধর ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে বেলাল কে বিয়ে করতে রাজী হওয়ায় সে বিভিন্ন সময় বেলালের সাথে চট্টগ্রামের বিভিন্ন স্থানে স্কুল পাকী দিয়ে গুরে বেড়াতো । বেলাল চট্টগ্রামের ১টি চা দোকানে কর্মীচারী হিসাবে চাকুরী করত। বেলাল তার পরিবারে সবকিছু চুমকীকে জানালেও দীর্ঘদিনের প্রেমের কারনে চুমকী হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে বেলালকে বিয়ে করতে রাজী হয়।

এরই সূত্রে ধরে গত জুন মাসের ২৬ তারিখ রাতে চুমকী বেলালের হাত ধরে বাড়ী থেকে পালিয়ে অন্যত্র চলে যায়। বেলাল চুমকীকে নিয়ে কোন দিশা না পেয়ে নিজ বাড়ীতে এসে উঠে। দীর্ঘ সময় প্রেমের সূত্র ও বিভিন্ন কাজে বেলাল কে তার বন্ধু রাসেল ও এনামুল হক সহ কয়েকজন তাকে সহযোগিতা করত। অবশেষে বেলাল চুমকীকে নিয়ে নিজ বাড়ীতে চলে আসলে তার পিতা মাতা চুমকীকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে বেলালকে বিয়ে করতে বললে চুমকী তাদের কথায় একমত হয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে ইসলামী শরীয়াহ মোতাবেক উভয়ে কোর্টের মাধ্যমে কাজী শিরিনের সহযোগিতায় বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। ইসলাম ধর্ম গ্রহণের পর চুমকী ধর নাম পরিবর্তন করে তার নাম রাখা হয় কাজলী বেগম।

এদিকে চুমকী ধরের পিতা চট্টগ্রামের একজন প্রভাবশালী ব্যবসায়ী। তিনি তার মেয়ে নিখোঁজের ঘটনায় কোতয়ালী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। পরে পুলিশ মেয়েটির বিভিন্ন স্থানে খোজ খবর নিয়ে সোনাগাজীতে আছে বলে জানতে পারে। গত ২০ জুলাই শনিবার চুমকীর পিতা সুনীল ধর স্থানীয় চা দোকানের কর্মচারী বেলাল হোসেন সহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামী করে কোতয়ালী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। উক্ত মামলায় পুলিশ বেলালের বন্ধু দাগনভূঞা উপজেলার মোমারিজ পুর গ্রামের রহিম উল্লাহর ছেলে রাসেল (২৫) ও ছাগলনাইয়া উপজেলার শিলুয়া গ্রামের রবিউল হকের ছেলে এনামুল হক (২৬) কে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা চুমকী ও বেলালের সন্ধান পুলিশকে দেয়। গ্রেফতারকৃতদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক চট্টগ্রামের কোতয়ালী থানার এস.আই ইলিয়াছ খানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ সোনাগাজী মডেল থানা পুলিশের সহযোগিতায় উপজেলার চর গোপালগাঁও গ্রামের নুরুল ইসলামের বাড়ী থেকে রবিবার দুপুরে চুমকী ধর কে উদ্বার করে থানায় নিয়ে আসে। এ সময় পুলিশ বেলালের পিতা নুর ইসলাম, মাতা ও পরিবারের সদস্যদের কে ছেলের সন্ধান দেওয়ার জন্য আটক করে থানায় নিয়ে এসে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মোচলেকা দিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য মো: মোস্তফার জিম্মায় ছেড়ে দেন। পরে কোতয়ালী থানা পুলিশ উদ্বারকৃত স্কুল ছাত্রী চুমকীকে চট্টগ্রামে নিয়ে যায়। অপহৃত স্কুল ছাত্রী চুমকী ধর জানান আমি চট্টগ্রামে একটি কলেজে অনার্সে পড়ি। আমার পরিবারে সদস্যরা আমার সম্পর্কে মিথ্যা তথ্য প্রচার করছে। আমি স্বইচ্ছায় ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে বেলালকে বিয়ে করে দীর্ঘ একমাস যাবত ঘর সংসার করে আসছি। আমাকে এরা জোর পূর্বক চট্টগ্রামে নিয়ে যাচ্ছে। আমি আমার স্বামী বেলাল কে নিয়ে জীবন যাপন করতে চাই।

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি সুভাষ চন্দ্র পাল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান স্কুল ছাত্রীকে উদ্বারের পর কোতয়ালী থানার পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments