রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
spot_img
Homeরাজনীতিগরিবের ঘরে সম্পদ থাকলে অনেকেরই নজর পড়ে: প্রধানমন্ত্রী

গরিবের ঘরে সম্পদ থাকলে অনেকেরই নজর পড়ে: প্রধানমন্ত্রী

সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, “আমাদের উন্নয়ন অনেকেরই ভালো লাগে না। সেজন্যে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র হচ্ছে। গরিবের ঘরে সম্পদ থাকলে অনেকেরই নজর পড়ে। আর আমরা তো সমুদ্র বিজয় করেছি।” শনিবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে বরিশাল জেলা, বরিশাল মহানগর, মৌলভীবাজার, চুয়াডাঙ্গা, নীলফামারী, পিরোজপুর, বগুড়া, গোপালগঞ্জ, হবিগঞ্জ তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “বিএনপি ক্ষমতার লোভে দেশ বেচে দিতেও দ্বিধা করবে না। বিরোধীদলীয় নেতা তো চেষ্টাই করেছিলেন, ২১ আগস্ট আমাকে হত্যা করতে। তদন্তে বেরিয়ে এসেছে তার ছেলে ও কেবিনেটের মন্ত্রীরা জড়িত। আমরা তার ছেলের পাচার করার অর্থ ফিরিয়ে এনেছি।’’

তিনি বলেন, “আমরা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু করেছি। তারা তো সবসময় আমাদের বিরুদ্ধে লেগেই আগে। খুনিদের ও জঙ্গিবাদকে মদদ দেয়া ও বোমা হামলা করা বিএনপি-জামায়াতের কাজ।”

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বলেন, “আমি বিরোধীদলীয় নেতাকে আলোচনায় বসার আহ্বান জানালাম। আর উনি আমাকে ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিলেন। বললেন আমি নাকি পালানোর পথ পাবনা। আমি এখনো আছি।”

শেখ হাসিনা বলেন, “আমরা দীর্ঘ প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে সব শ্রেণি-পেশার মানুষের মতামত ও উচ্চ আদালতের রায়ের আলোকে সংবিধান সংশোধন করেছি। লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে যে সংবিধান আমরা পেয়েছি সে সংবিধানের অধীনেই দেশ চলবে। আগামী নির্বাচনও সংবিধানের আলোকে হবে। সংবিধান অনুযায়ী দেশ চালাতে আওয়ামী লীগ বদ্ধপরিকর।”

তিনি বলেন, “দেশের উন্নয়ন করার জন্য আমাদের টান রয়েছে। কারণ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু দেশকে স্বাধীনতা দিয়েছেন। দেশের মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন করাই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য।’’

এ সময় তিনি বর্তমান সরকারের শিক্ষা, অর্থনীতি, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ, বিদ্যুৎ, গ্যাসসহ বিভিন্ন উন্নয়নের কথা তুল ধরেন।

হেফাজতে ইসলামের সমালোচনা করে শেখ হাসিনা বলেন, “যারা শত শত কোরআন পুড়িয়েছে।বায়তুল মোকাররমে আগুন দিয়েছে তাদের হাতে ইসলাম হেফাজত হয় কীভাবে।”

বিএনপি-জামায়াতের অপপ্রচারের কথা উল্লেখ করে সরকার প্রধান বলেন, “বিরোধী নেত্রী কয়দিন আগেও বলেছেন মতিঝিলে হেফাজতের সমাবেশে নাকি দেড় লাখ গুলি ছোড়া হয়েছে। এত গুলি ছুড়লে তো মতিঝিলের সব দালান ঝাঁঝরা হয়ে যেত। অপপ্রচার চলছে হেফাজতের সমাবেশে নাকি ২৫০০ মানুষ নিহত হয়েছে। এত নিহত হলে তো আরো দশ হাজার আহত হওয়ার কথা। কিন্তু কোথাও আহত কাউকে পাওয়া যায়নি।”

শেখ হাসিনা বলেন, “আমরা তাদের কাছে নিহতদের তালিকা চাইলাম। তারা দিতে পারল না। পরে অধিকার বলল নিহত হয়েছে ৬১ জন। দেখা গেল এ তালিকার ২৫ জনের কোনো নাম ঠিকানা নেই। তিনজন এখনো বিভিন্ন মাদ্রাসায় পড়ছে।”

শেখ হাসিনা বলেন, “তারা হাইতির ভূমিকম্পের ছবি, আমেরিকার আত্মহত্যার ছবি আর ক্বাবা শরীফের গিলাফ পরিবর্তনের ছবি নিয়ে এলাকার মা-বোনদের নিকট অপপ্রচার চালাচ্ছে। যাদের কাছে মসজিদ ও ক্বাবা নিরাপদ না তারা কিসের মুসলমান।”

সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, “যারা ইসলামের নাম নিয়ে রাজনীতি করে, কোরআন হাতে নিয়ে মানুষকে ধোকা দেয় তারা কিসের ইসলামের হেফাজত করবে? যারা শত শত কোরআন পোড়ান, মসজিদের ঢুকে আগুন দেয়, ইমামকে নামাজ পড়ানোর বাধা সৃষ্টি করে তাদের হাতে ইসলাম কতটুকু নিরাপদ?”

তিনি বলেন, “ইসলামের সেবা একমাত্র আওয়ামী লীগই করে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা, টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমার জন্য জায়গা দিয়েছেন বঙ্গবন্ধু। বায়তুল মোকাররম মসজিদের উন্নয়ন করা হয়েছে আওয়ামী লীগ আমলে। আগামীতে জেলায় জেলায় বায়তুল মোকাররমের মতো  সেন্টাল মসজিদ বানানো হবে।”

তিনি বলেন, “বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে ইসলামের জন্য কোনো কাজ করেনি। তারা শুধু ইসলামের নামে বড় বড় কথা বলেছে।”

সংগঠনকে শক্তিশালী করার নিদের্শ দিয়ে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী তৃণমূল নেতাকর্মীদের বলেন, “আপনারা নিজ নিজ এলাকায় সংগঠনকে শক্তিশালী করুন। আমাদের শক্তি জনগণ ও সংগঠন। এছাড়া কোনো শক্তি আমাদের নেই। সংগঠন শক্তিশালী হলে আবারো ক্ষমতায় আসতে পারব।”

উপদফতর সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাসের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগে কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, কাজী জাফর উল্লাহ, আবদুল লতিফ সিদ্দিকি, সতিশ চন্দ্র রায়, আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ, মাহবুব-উল আলম হানিফ, অ্যাডভোকেট আব্দুল মান্নান খান, বদিউজ্জামান ভুইয়া ডাবলু, আসাদুজ্জামান নূর, আবু সাঈদ আল-মাহমুদ স্বপন, অসীম কুমার উকিল, প্রমুখ।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments