রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
spot_img
Homeজেলালাকসামে স্বদেশ রেস্তোরায় খাবারের নামে গলাকাটা ব্যবসা

লাকসামে স্বদেশ রেস্তোরায় খাবারের নামে গলাকাটা ব্যবসা

কুমিল্লার লাকসাম বাইপাসে স্বদেশ হোটেলে খাবার ব্যবসার নাম করে গলাকাটার ব্যবসার অভিযোগ উঠেছে। এ হোটেলে খাবার খেতে গিয়ে প্রতিনিয়ত প্রতারিত হচ্ছে ভোক্তভোগীগণ।স্বদেশ রেস্তোরা ও মিনি চাইনিজ হোটেল নাম দিলেও বাস্তবে কোনটি মিল নেই। প্রতিষ্ঠার পর থেকে চড়াদামে খাবার বেচা, নোংরা পরিবেশ, অতিমাত্রা গরম এবং সরকারী কোন নিতিমালার তোয়াক্কা না করেই ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। ৪ জনের যৌথমালিকানায় এ হোটেলটি শুরু থেকেই নিুমানের খাবার পরিবেশন করে চড়া দাম নিতে গিয়ে খাবার পরিবেশনকারী ও ভোক্তাদের সাথে ঝগড়াঝাটি নিত্যদিন লেগেই থাকে। এ হোটেলে নিজেদের ইচ্ছামত মুল্যতালিকা ঝুলিয়ে রাখলেও  বাস্তবে খাবার বিল পরিবেশনের সাথে কোন মিল নেই। সরকারী নিতিমালা অনুসারে হোটেলে খাবার মুল্য তালিকা স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও বাজার নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষের স্বাক্ষরীত  তালিকা ঝুলিয়ে রাখার  কথা থাকলেও ওই হোটেল কর্তৃপক্ষ তাদের ইচ্ছামত মূল্য তালিকা টেবিলে দিয়ে রাখে। এ হোটেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, পরিবেশ অধিদপ্তর, আয়কর সনদ অথবা বাজার নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষের অনুমোদিত  মূল্যতালিকা কোনটি নেই। যারফলে সরকারের আয়কর ফাঁকিসহ যাবতীয় অনিয়মের মাধ্যমে সরকারী রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছে। কখনো কখনো উঠতি বয়সের যুবক-যুবতীরা ঘন্টার পর ঘন্টা এ হোটেলে সময় কাটানোর ফলে জনমনে নানাবিধ প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। হোটেল মালিক নিজেকে অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা বলে দাবী করছে। নিজেদের মূল্য তালিকায় সাদা ভাত-১০ টাকা প্লেটের পরিবর্তে জনপ্রতি ২৫টাকা এবং স্পেশাল সবজি ১০ টাকার পরিবর্তে ২৫ টাকা এবং চা ৮টাকার পরিবর্তে ১০ টাকাসহ অধিক মূল্যে রাখতে গিয়ে খাবার গ্রহীতাদের সাথে মালিক কিংবা ম্যানেজারের সহিত প্রায় বাকবিতন্ডা হতে দেখা যায়।
গত ৭ সেপ্টেম্বর শনিবার দুপুর বেলায় জনৈক ৫ ব্যাক্তি খাবার খেতে গিয়ে সাদা ভাত ১০টাকার পরিবর্তে ৫জন থেকে ১২৫ টাকা ও ১০ টাকার মূল্যের সবজির পরিবর্তে ৫জন থেকে ১২৫ টাকা এবং ৫টাকা মূল্যে ১ বাটি ডাল দিয়ে ২৫ টাকা আদায় করায় ওই ব্যাক্তিদ্বয়ের সাথে বাকবিতন্ডা সৃষ্টি হয়। এছাড়াও খাবার মূল্য তালিকার সাথে বিল পরিশোধের মিল না থাকায় প্রতিনিয়ত খাবার গ্রহীতাদের সাথে বাকবিতন্ডা লেগেই থাকে। ভোক্তভোগী খাবার গ্রহীতা আবদুল করিম জানান, এ হোটেলে মালিকপক্ষের খাবার মূল্য তালিকার সাথে বিল পরিশোধের ভাউচার সহিত কোন মিল নেই। যারফলে প্রতিনিয়ত খাবার গ্রহিতারা প্রতারিত হচ্ছে। অনতি বিলম্বে উপজেলা প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। অভিযোগের বিষয়ে স্বদেশ রেস্তোরা ও মিনি চাইনিজের সত্ত্বাধিকারী বাবুলকে ০১৭২৮০৪০২১৮ নাম্বারে ফোন করলে মালিক পরিচয় দিয়ে মোবাইল সংযোগটি কেটে দেয়ার কারনে তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments