শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
spot_img
Homeআন্তর্জাতিকসিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র হস্তান্তরে রাশিয়া-আমেরিকা চুক্তি

সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র হস্তান্তরে রাশিয়া-আমেরিকা চুক্তি

সিরিয়ার কাছে থাকা রাসায়নিক অস্ত্র আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে হস্তান্তরের জন্য একটি চুক্তিতে সম্মত হয়েছে রাশিয়া-আমেরিকা। চুক্তি অনুযায়ী মজুদ থাকা অস্ত্রের তালিকা প্রকাশ করতে এবং দেশটিতে আন্তর্জাতিক তদন্তকারীদের ঢুকতে দিতে সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে আমেরিকা। এর ফলে সিরিয়ায় আমেরিকার সামরিক হামলা আপাতত থাকল না।

শনিবার আলজাজিরা জানায়, জেনেভায় সিরিয়া সংকট নিয়ে চলা রাশিয়া-আমেরিকার এক আলোচনায় এই সিদ্ধান্ত এবং চুক্তিতে সম্মত হয়েছেন দেশ দুইটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

রাশিয়ান পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভের সঙ্গে তিনদিনের বৈঠকের পর সিরিয়ায় আপাতত হামলা না চালানোর এই ঘোষণা দেন আমেরিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি।

তবে সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র হস্তান্তরের জন্য আমেরিকা যে সময়সীমা বেঁধে দিচ্ছে তা অবাস্তব বলে জানিয়েছেন রাশিয়ার সংসদের নিম্নকক্ষ দুমা’র পররাষ্ট্র সম্পর্ক বিষয়ক কমিটির প্রধান অ্যালেক্সি পুশকভ।

বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে কেরি জানান, আগামী নভেম্বরের মধ্যেই সিরিয়ায় আন্তর্জাতিক তদন্তকারীদের প্রবেশ করতে দিতে হবে। সেই সঙ্গে ২০১৪ সালের জুলাই মাসের মধ্যেই দেশটিতে মজুদ থাকা সব রাসায়নিক অস্ত্র ধ্বংস করতে হবে বলে জানান কেরি।

আমেরিকান পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “সিরিয়া এবং এর প্রতিবেশী দেশগুলো যাতে রাসায়নিক অস্ত্রের হুমকি থেকে নিরাপদ রাখতেই এই সময়সীমা বেঁধে দেয়া হয়েছে।”

প্রেসিডেন্ট আসাদ খুব শিগশিগরই অস্ত্র হস্তান্তর করবেন এমন আশা জানিয়ে কেরি বলেন, “বিশ্ব এখন দেখতে চায় যে অস্ত্র হস্তান্তর করে আসাদ তার কথা রেখেছেন।”

বৈঠকে কেরির প্রস্তাব অনুযায়ী চুক্তিতে ছয়টি শর্ত নির্ধারণ করা হয়। সেগুলো হলো-রাসায়নিক অস্ত্রের ধরন ও সংখ্যা নিয়ে উভয়পক্ষকে একমত হতে হবে ও দ্রুত সেগুলো আন্তর্জাতিক নিয়ন্ত্রণে দিতে হবে, সিরিয়াকে এক সপ্তাহের মধ্যে তাদের কাছে মজুদ থাকা রাসায়নিক অস্ত্রের পূর্ণ তালিকা জমা দিতে হবে, রাসায়নিক অস্ত্র ধ্বংসের জন্য ‘রাসায়নিক অস্ত্র কনভেনশনের’ আওতায় বিশেষ ব্যবস্থা নিতে হবে, রাসায়নিক অস্ত্র মজুদ আছে এমন স্থাপনায় অস্ত্র পরিদর্শকদের দ্রুত ও অবাধ প্রবেশের সুযোগ দিতে হবে, সব রাসায়নিক অস্ত্র ধ্বংস করার পাশাপাশি সিরীয় সীমান্ত থেকে এসব অস্ত্র দ্রুত সরিয়ে নিতে হবে।

যদি চুক্তি লংঘন হয় তবে জাতিসংঘ সনদের সপ্তম অনুচ্ছেদ অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জাতিসংঘ সনদের সপ্তম অনুচ্ছেদ অনুযায়ী নিরাপত্তা কাউন্সিল সিরিয়ায় হামলার অনুমতি দেয়ার বিষয়টি বিবেচনা করবে।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments