রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
spot_img
Homeজেলাফেনী-৩ এ নির্বাচনী হাওয়া: থেমে নেই জোট-মহাজোটের প্রার্থীরা

ফেনী-৩ এ নির্বাচনী হাওয়া: থেমে নেই জোট-মহাজোটের প্রার্থীরা

আগামী দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে হবে নাকি দলীয় সরকারের অধীনে হবে এনিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে সরকারি দল ও বিরোধী দল মুখোমুখি অবস্থানে থাকলেও বসে নেই ফেনী-৩ (দাগনভূঞা-সোনাগাজী) আসনের বড় দু’দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। ‘নির্বাচনী ঈদ’ও ঘটা করে পালন করেছে তারা। সামাজিক আচার-অনুষ্ঠানে যোগ দিচ্ছে বেশ। কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ, দলের সমর্থন পেতে তদবির-লবিং ও মাঠ পর্যায়ে নিরবে গণসংযোগ চালিয়ে নিজেদের আগ্রহের কথা জানান দিচ্ছে প্রার্থীরা। একাধিক প্রার্থীর ঈদের শুভেচ্ছা কিংবা পবিত্র রমজানের শুভেচ্ছা সম্বলিত পোষ্টারে ছেয়ে গেছে সংসদীয় এ আসনের প্রত্যন্ত অঞ্চল।
সংশ্লিষ্ট সূত্র ও বিভিন্ন দলের নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, বিগত নির্বাচনে মহাজোট প্রার্থী আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবুল বাশার ৯৩ হাজার ৬৩০ ভোট পেয়ে হেরে যাওয়ার পর এলাকার নেতাকর্মীদের সাথে যোগাযোগ তেমন রক্ষা করেননি। এখন দলের নেতাকর্মীদের তিনি কতটুকু পাশে পাবেন সে হিসাব-নিকাশও চলছে। অবশ্য বাশারের ঘনিষ্ঠদের অভিযোগ, বিগত নির্বাচনে আওয়ামীলীগের হাইব্রীড নেতাদের ষড়যন্ত্র ও বেঈমানির কারনে পরাজয় বরণ করতে হয়েছে। রমজানে যুবলীগের প্রভাবশালী এ নেতা আবুল বাশার বিভিন্ন এলাকায় দলীয় ইফতার মাহফিলে যোগ দিয়ে আগামী নির্বাচনে সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার মনোনীত প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করতে দলীয় নেতাকর্মীদের আহবান জানান। এছাড়া আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন পেতে মরিয়া হয়ে উঠেছে সাবেক সংসদ সদস্য ও আলোচিত আওয়ামীলীগ নেতা জয়নাল আবদীন হাজারী, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও মার্কেন্টাইল ব্যাংকের পরিচালক আকরাম হোসেন হুমায়ুন, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক জহির উদ্দিন মাহমুদ লিফটনসহ বেশ কয়েকজন। ইতিমধ্যে হাজারী আসনটি নিশ্চিত করতে দাগনভূঞায় বেশ কয়েকবার সফর করেছেন। ঢাকায় কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে একাধিকবার বৈঠক করেছেন বলে সূত্রে জানা গেছে।
অন্যদিকে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও বর্তমান সংসদ সদস্য মুহাম্মদ মোশাররফ হোসেনও আগামী নির্বাচনেও প্রার্থী হতে আগ্রহী। দীর্ঘদিন গুরুতর অসুস্থ্য থাকার ফলে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে দুরত্ব সৃষ্টি হয়েছে। তবে দূরত্ব কমাতে ঈদ পরবর্তী সময়ে এলাকায় ব্যাপক গণসংযোগ করেছেন। নানা গ্র“পে দ্বিধাবিভক্ত দলের নেতাকর্মীরা অভ্যন্তরীন কোন্দলে জড়িয়ে যাওয়ায় এখানে কেউ কারো কথা শোনেনা। ফলে অভিভাবকহীন বিএনপির হাল ধরার জন্য সাবেক সেনা কর্মকর্তা বিগ্রেডিয়ার জেনারেল (অব:) নাসির উদ্দিন আহমদ ইতোমধ্যে উঠে-পড়ে লেগেছেন। দলের কোন পদ-পদবীতে না থেকেও সাবেক এ সেনা কর্মকর্তা ব্যানার-পোষ্টার-পেষ্টুন সেঁটে তার প্রার্থীতার কথা জানান দিচ্ছেন। এদিকে বিএনপি চেয়ারপার্সনের অপর উপদেষ্টা শিল্পপতি আবদুল আউয়াল মিন্টুর ছোট ভাই ও দাগনভূঞা উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো: আকবর হোসেন প্রার্থীতা পেতে নানা লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া দুই জোটের প্রধান শরীক জামায়াতে ইসলামী ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীরাও থেমে নেই। প্রার্থীতা চূড়ান্ত হওয়ায় জামায়াত মনোনীত প্রার্থী ইসলামী ছাত্রশিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ডা: ফখরুদ্দীন মানিক কারাগারে থাকলেও তার পক্ষে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে দলীয় নেতাকর্মীরা। জনগনের দৃষ্টি আকর্ষন করতে ঈদ উপলক্ষ্যে বিপুল সংখ্যক ব্যানার-পোষ্টার, পেষ্টুন সেঁটেছেন। তবে জোটগতভাবে আসন না পেলে এককভাবে হলেও জামায়াত মনোনীত এ প্রার্থীর নির্বাচনে অংশগ্রহন নিশ্চিত বলে জামায়াত সূত্রের দাবী। অপরদিকে জাপা প্রার্থী হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদের প্রচার ও প্রকাশনা উপদেষ্টা রিন্টু আনোয়ারও গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন।

সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments