রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
spot_img
Homeজেলাসোনাগাজীতে ইসলামী ব্যাংকের কাউন্টার থেকে গ্রাহকের ৫ লাখ টাকা ছিনতাই

সোনাগাজীতে ইসলামী ব্যাংকের কাউন্টার থেকে গ্রাহকের ৫ লাখ টাকা ছিনতাই

সোনাগাজী পৌরশহরের মেইন রোডে অবস্থিত ইসলামী ব্যাংক সোনাগাজী শাখার ভেতরে কাউন্টারের সামনে সেকেন্ড অফিসারের টেবিল থেকে বুধবার দুপুরে মানিক নামের এক গ্রাহকের এক গ্রাহকের ৫ লক্ষ টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যায় অজ্ঞাত নামা দূর্বত্তরা। সন্দেহের তীর ব্যাংক কর্মকর্তাদের দিকে।
ক্ষতিগ্রস্থ গ্রাহক ও সংশ্লিষ্ট সূত্র জানা যায়, বুধবার দুপুরে সোনাগাজীর আবদুল মুনাফ এন্ড সন্সের মালিক আবদুল মুনাফ মিয়ার জামাতা জামাল উদ্দিন মানিক ইসলামী ব্যাংক সোনাগাজী শাখায় ৫ লক্ষ টাকা নিয়ে এসে অন-লাইনে ঢাকা টোবাকো ইন্ডাট্রিজ লিঃ এ পাঠানোর জন্য ব্যাংক কাউন্টারের   সামনে সেকেন্ড অফিসারের টেবিলে বসে অন-লাইনের ফরম করাবস্থায় হঠাৎ অজ্ঞাত নামা তিন ব্যক্তি এসে টেবিলের উপর রাখা টাকার ব্যাগ নিয়ে দৌঁড়ে দ্রুত ব্যাংক থেকে নেমে পালিয়ে যায়। এ সময় টাকার মালিক জামাল উদ্দিন চিৎকার দিলে ব্যাংকের কর্মকর্তরা দ্রুত গেইটের দিকে ছুটে যান। কিন্তু গেইটে কোন সিকিউরিটি গার্ড না থাকায় দূর্বত্তরা দ্রুত অতি সহজে পালিয়ে যেতে সম হয়। দূর্বত্তদের পেছনে ছুটতে গিয়ে জামাল উদ্দিন সিঁড়িতে উপড়ে পড়ে আহত হয়। পরে বিষয়টি নিয়ে ব্যাংকের গ্রাহকদের মাঝে চরম উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার সৃষ্টি হয়। পরবর্তীতে ব্যাংকের ব্যবস্থাপকের কে রতি সিসি ক্যামেরায় ধারণকৃত ভিডিও ফুটেজটি দেখে দূর্বত্তদের সনাক্ত করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়। ব্যাংক কর্মকর্তাদের অসৌজন্যমূলক আচরণের কারণে উপস্থিত গ্রাহকরা তাদের উপর চওড়াও হয়ে ওঠে। খবর পেয়ে সোনাগাজী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সুভাষ চন্দ্র পাল ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করে ব্যাংক ব্যবস্থাপককে সিসি ক্যামেরায় ধারণকৃত ভিডিও ফুটেজ দেখে অপরাধীদের সনাক্ত ও টাকাগুলো উদ্ধারের ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলেন।

ক্ষতিগ্রস্থ জামাল উদ্দিন জানান,  ব্যাংক কর্মকর্তাদের অব্যবস্থাপনা ও দায়িত্ব পালনে অবহেলার কারণে এ ঘটনা ঘটেছে।বিষয়টি ব্যাংকের ব্যবস্থাপক আনোয়ার হোসেন জানার পরও যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে অপারগ। ইসলামী ব্যাংক, সোনাগাজী শাখার ছলিম উল্যাহ নামক গ্রাহক জানান, পূর্বেই এই ব্যাংকে  এ রকম অনেক ঘটনা ঘটেছে। গ্রাহক হয়রানি সহ ব্যাংকের কর্মকর্তাদের হয়রানিমূলক ও অনৈতিক আচরণের বিষয়গুলো ব্যাংক ব্যবস্থাপককে জানিয়েও কোন প্রতিকার পাওয়া যায়নি। ইসলামী ব্যাংকে মহিলা গ্রাহক বেশি হওয়ায় অতি সহজেই দূর্বৃত্তরা নানা ধরণের অপরাধমূলক কর্মকান্ড ঘটিয়ে থাকে। ব্যাংকে অপর এক গ্রাহক অভিযোগ করেন জামাল উদ্দিনের টাকাগুলো ছিনতাইয়ের পর ব্যাংক কর্মকর্তারা ব্যবস্থা না করে উল্টো জামাল উদ্দিনের বাকবিতন্তড়তায় লিপ্ত হন। গ্রাহকরা  ব্যাংকের ব্যবস্থাপককে সিসি ক্যামেরায় ধারণকৃত ভিডিও ফুটেজটি বের করে দেখতে চাইলে ব্যাংকের ব্যবস্থাপক আনোয়ার হোসেন বলেন, সিসি ক্যামেরায় ধারণকৃত ফুটেজটি বের করার মত কোন মেকানিক আমাদের কাছে নেই। আর আমরা এ ফুটেজটি বের করতে পারবোও না। উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদেরকে জানিয়ে কয়েক দিনের মধ্যে ঢাকা থেকে মেকানিক এনে ভিডিও ফুটেজটি বের করে অপরাধী সনাক্ত ও টাকাগুলো উদ্ধার করব। এ ব্যাপারে ব্যাংকের ব্যবস্থাপক আনোয়ার হোসেন জানান, জনগণের টাকা পাহারা দেওয়ার দায়িত্ব আমার নয়। আমি শুধু ব্যাংকের টাকাই নিরাপত্তা প্রহরী দিয়ে পাহারা দিই। ছিনতাইকৃত টাকাগুলো উদ্ধারের জন্য আমরা চেষ্টা করছি।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments