সোমবার, অক্টোবর 18, 2021
সোমবার, অক্টোবর 18, 2021
সোমবার, অক্টোবর 18, 2021
spot_img
Homeজেলা কবিয়াল কালাম মিয়া ফারুকীর মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

কবিয়াল কালাম মিয়া ফারুকীর মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

৫ অক্টোবর ২০১৩ শনিবার কবিয়াল সম্রাট বিখ্যাত লোককবি কালাম মিয়া ফারুকীর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গবেষণা সংস্থা মানুষের ঠিকানা’র উদ্যোগে এক আলোচনা সভা সংস্থার চেয়ারপার্সন ও নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ শিবলী ছাদেক কফিল’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। বরেণ্য কবিয়াল কালাম মিয়া ফারুকীর জীবনের কৃতিত্ব নিয়ে আলোচনায় অংশ নেন কবিয়াল সঞ্জয় গান্ধী দাশ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম (ইউএসটিসি)’র পিআরও শামসুল আলম টগর, মাস্টার মঞ্জুরুল ইসলাম, মাওলানা ইউসুফ আনসারী, কবিয়াল মেঘনাথ সরকার, কবিয়াল নিরঞ্জন ঘোষ, কবিয়াল আবদুল আজিজ, মিসেস প্রিয়াংকা দাশ, সাংবাদিক ইমরান সোহেল প্রমুখ।

আলোচকরা বলেন, আমাদের দেশীয় ও লোকজ সংস্কৃতির ঐতিহ্য কবিগান পরিবেশন করে কালাম মিয়া ফারুকী মানুষের মনে তৃপ্তি দান করতেন। সহিংসতা-সংঘাত-অপরাধ থেকে গানের মাধ্যমে গণমানুষকে শান্তি ও প্রগতির পথে উদ্বুদ্ধ করতেন। তিনি তার কৃতিত্বপূর্ণ গানের মাধ্যমে চিরদিন মানুষের হৃদয়ে বেঁচে থাকবেন।

উল্লেখ্য কবিয়াল স¤্রাট বিখ্যাত লোককবি কালাম মিয়া ফারুকী ১৯৪৬ সালের ২৯ ডিসেম্বর বিষুদবার দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়া থানার কালিয়াইশ বুধাগাজী পাড়ার সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম মুহাম্মদ আবদুর রহমান এবং মাতার নাম মোছাম্মৎ হাবীবা খাতুন। স্বল্প শিক্ষিত কালাম মিয়া ফারুকী অনুসরণ, অনুকরণ, অনুসন্ধান, গবেষণা, চর্চা ও সাধনায় বাংলাদেশ ও ভারতের জননন্দিত, বরেণ্য ও বিদগ্ধ কবিয়ালে পরিণত হন। জীবদ্দশায় তিনি ভারত ও বাংলাদেশের সর্বত্র প্রায় চার হাজার কবিগানের আসরে কৃতিত্ব ও সফলতার সাথে অংশ নেন। ধারণকৃত অনুষ্ঠান টিভি ও বেতারে প্রচার হয়। বিভিন্ন পত্রিকার ফিচারের বিষয় ছিল। কলকাতা, ত্রিপুরা, আগরতলা ও বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে প্রায় অর্ধ শতাধিক পদক, সম্মাননা, সংবর্ধনা ও পুরষ্কারে সিক্ত হন। তিনি স্ত্রী, ৪ পুত্র ও অসংখ্য ভক্ত-অনুসারী রেখে ৬৭ বছর বয়সে  ৫ অক্টোবর ২০১২ তারিখে না ফেরার দেশে পাড়ি দেন।

তাঁর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে পালিত অন্যান্য কর্মসূচীর মধ্যে ছিল আলোচনা সভা, খতমে কোরআন, দোয়া মাহফিল, কবরে পুষ্পস্তবক অর্পন ইত্যাদি। গবেষণা সংস্থা মানুষের ঠিকানা, কবিয়াল সমিতি, কবিয়াল সংঘ ও লোককবি পরিষদ এবং পারিবারিকভাবে পৃথক পৃথকভাবে কর্মসূচী পালন করে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments