রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
spot_img
Homeজেলামহেশখালী মাদার ট্রি নিধন করে তৈরী হচ্ছে অবৈধ বোর্ট।

মহেশখালী মাদার ট্রি নিধন করে তৈরী হচ্ছে অবৈধ বোর্ট।

দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীর কালারমারছড়া,হোয়ানক,শাপলাপুর,বড় মহেশখালী ও ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের বনাঞ্চলের মাদার ট্রি অসাধূ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে  আতাঁত করে বন খেকোদের মারফতে বোট মালিকেরা বন সাবাড় করে বোট তৈরির হিড়িক পড়েছে বলে জানা গেছে। বন বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারীরা জেনেও না জানার ভান করে থাকে বলে সচেতন মহলের ধারনা। সম্প্রতি মহেশখালী দিনেশপুর বিট অফিসের পাশ্ববর্তী প্রধান সড়কস্থ দিন-দুপুরে আকাশ মনি,গর্জ্জন,মেহেগনি,মাদার ট্রি সহ বিভিন্ন প্রজাতের বড় বড় মাদার ট্রি কেটে একটি মিনি ট্রাকে তুলারত অবস্থায় ঘটনাস্থল থেকেই মিডিয়াকর্মী  দিনেশপুর বিট অফিসার  কে অবহিত করলে সে তাৎক্ষণিক  উত্তরে বলেন মালিকানাধীন জায়গা থেকে গাছ গুলি কেটেঁ গাড়ীতে তুলা হচ্ছে। তার কথায় সন্দেহাতীত হয়ে রেঞ্জ কর্মকর্তাকে অবহিত করা হলে সে খতিয়ে দেখার আশ্বাস দেন। সর্বোপরি দেখা গেছে ১২ নং পাহাড়ী মৌজায় গাছ শূন্য ও মানব পরিবেশ বিঘিœত হচ্ছে। এমনও দেখা গেছে দিন দুপুরে ট্রাক, জীপ, টলি, ঠেলা, রিক্সা ভর্তি গাছ করাত কলে এনে চিরাই করে। বন বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারীদের কোন খবর নাই। সম্প্রতি সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে ঘটিভাঙ্গার সোনাদিয়ার চর,ছোট মহেশখালীর মুদিরছড়া- আহমদিয়া কাটা,ঁশাপলাপুর ইউনিয়ন চরঘাট ও গোরকঘাটার খালৈর চরে হাজার হাজার ফুট চিরাইকৃত মাদার ট্রি দিয়ে তৈরী হচ্ছে হরেক রকমের ছোট বড় ফিশিং বোট। এ ব্যাপারে রেঞ্জ কর্মকর্তা আনিছুল হক জানান, আমরা সাধ্যমত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি বনখেকোদের দমাতে এবং বন সংরক্ষন করতে। এলাকার সচেতন মহল জানান, বন উজাড় করে বোট তৈরির পেছনে  বন কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা দায়ী। না হলে কি করে প্রকাশ্যে দিন দুপুরে মাদার ট্রি কেটে অবৈধ ভাবে বোট তৈরী করে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments