বৃহস্পতিবার, অক্টোবর 21, 2021
বৃহস্পতিবার, অক্টোবর 21, 2021
বৃহস্পতিবার, অক্টোবর 21, 2021
spot_img
HomeUncategorizedকাল পবিত্র ঈদুল আযহা, উৎসবে স্বস্তি নেই, উৎকণ্ঠায় দেশ

কাল পবিত্র ঈদুল আযহা, উৎসবে স্বস্তি নেই, উৎকণ্ঠায় দেশ

আর মাত্র একদিন পর পবিত্রঈদুল আযহা। রাজনৈতিক অস্থিরতা পূজা আর ঈদের আনন্দ ম্লান করে দিচ্ছে ৷ ২৫ তারিখ কী হবে তা দিয়ে উত্কণ্ঠার শেষ নেই৷ বিরোধী দল হামলা প্রতিরোধে দা-কুড়াল নিয়ে প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানিয়েছে৷ সরকারি দল ছাড়াও মাঠে নামাবে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী৷

সোমবার দুর্গাপূজা শেষে বিজয়া দশমীর দিনে ঢাকার পূজা মণ্ডপগুলিতে সব ধর্মের মানুষের ঢল নামলেও তাদের সবার মুখেই ছিল একটি কথা, কী হবে দেশের, কী হবে ২৫ অক্টোবর৷ তাই পুরোহিতও প্রার্থনা করেছেন দেশের শান্তি, সংহতি এবং রাজনৈতিক সুস্থতার জন্য৷

এদিকে কুরবানির ঈদে ঢাকার মানুষ গ্রামে ছুটতে শুরু করেছেন৷ বুধবার উদযাপিত হবে ঈদুল আজহা৷ তবে যারা প্রিয়জনের সান্নিধ্যে ঈদ করতে বাড়ি যাচ্ছেন আর যারা ঢাকায় থাকছেন – তারা কেউই স্বস্তি পাচ্ছেন না৷ সবার মাথায় একটাই চিন্তা – কী হবে ২৫ অক্টোবর? দেশ ও দেশের মানুষ কোন পরিস্থতির মুখোমুখি হবেন?

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ২৫ অক্টোবর হবে ‘ফাইনাল খেলা’৷ ফাইনাল খেলার জনসভায় সাত দিনের প্রস্তুতি নিয়ে নেতা-কর্মীদের অংশগ্রহণের জন্য আহ্বান জানিয়েছেন তিনি৷ ওদিকে, ঢাকা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক সাদেক হোসেন খোকা বলেছেন, ২৫ অক্টোবরের জনসভায় হামলা হতে পারে৷ তাই সবাইকে প্রয়োজনে দা-কুড়াল নিয়ে প্রস্তুত হয়ে আসতে হবে, বলেছেন তিনি৷

অন্যদিকে, একই দিনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগও ঢাকায় জনসভা ডেকেছে৷ প্রধানমন্ত্রী এরই মধ্যে ঘোষণা করেছেন যে, কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হলে জনগণের জানমালের নিরাপত্তা দেয়ার দায়িত্ব সরকারের৷ সরকার সে দায়িত্ব পালন করবে৷ প্রসঙ্গত, এদিন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা মাঠে থাকবেন বলে এর আগে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা কাজী জাফর উল্লাহ৷

এ পরিস্থিতিকে আশঙ্কাজনক বলে চিহ্নিত করেছেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারে উপদেষ্টা হাফিজ উদ্দিন খান৷ তিনি ডয়চে ভেলেকে বলেন, এখন পরস্পরকে দেখে নেয়ার প্রস্তুতি শুরু হয়েছে৷ সেই সঙ্গে যৌক্তিক আলোচনার আশা শেষ হয়ে যাচ্ছে, যা দেশকে সংঘাতের দিকেই নিয়ে যাবে৷ তিনি বলেন, সাংবিধানিক ব্যখ্যা যাই থাকুক না কেন, সব দলের অংশগ্রহণে সুষ্ঠু এবং নিরপেক্ষ নির্বাচনের নিশ্চয়তা দিতে হবে সরকারকে৷ কিন্তু সেই নিশ্চয়তা এখনো সরকার দিতে পারছে না৷ অথচ দেশকে সংঘাতের হাত থেকে বাঁচানোর প্রথম দায়িত্ব সরকারের৷

প্রবীণ আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক উল হক বলেন, সংবিধানের এত ব্যাখ্যার মারপ্যাঁচের দরকার নেই৷ দরকার হলো নির্বাচন৷ আর সেই নির্বাচন একতরফা হলে হবে না৷ তার কথায়, এখন দুই নেত্রী বসে যদি এর সমাধান না করেন, তাহলে হয়তো সংঘাত আর ঠেকানো যাবে না৷ সূত্র: ডিডব্লিউ।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments