রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
spot_img
Homeরাজনীতিআন্দোলনের নামে নৈরাজ্য ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করা হলে হাত-পা কেটে দেয়া হবে:...

আন্দোলনের নামে নৈরাজ্য ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করা হলে হাত-পা কেটে দেয়া হবে: শেখ সেলিম

“আমরা পাঁচ বছরের জন্য ক্ষমতায় এসেছি। এবার আন্দোলনের নামে নৈরাজ্য ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করা হলে প্রত্যেকের হাত-পা কেটে দেয়া হবে।” বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম।  এ সময় অতীতে নির্বাচন প্রতিহতের নামে বিএনপি অনেক ধংসাত্মক কর্মকাণ্ড চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

রোববার বিকেলে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে তেজগাঁ থানা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শেখ সেলিম এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, “উপজেলা নির্বাচনের পর আন্দোলনের হুমকি দিচ্ছে খালেদা জিয়া। আন্দোলনের নামে জ্বালাও-পোড়াও, মানুষ হত্যা, পেট্রল বোমা নিক্ষেপ- এগুলো করলে প্রত্যেকের হাত-পা কেটে দেয়া হবে।”

আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, “জাতীয় নির্বাচনের আগে নির্বাচন প্রতিহতের নামে মার্চ ফর নাশকতা এবং মার্চ ফর পেট্রল বোমা কর্মসূচিসহ কত কিছুই না করা হয়েছে।”

তিনি দাবি করেন, “তাদের উদ্দেশ্য ছিল মূলত যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করা, নির্বাচন প্রতিহত করা নয়। এবার যদি সেটা করতে চায় তাহলে আমরাও রুখে দেব।”
সেলিম বলেন, “আন্দোলন কাকে বলে কয় প্রকার ও কি কি এটা বঙ্গবন্ধু আমাদের শিখিয়েছে। খালেদা জিয়া কি সরকার বিরোধী আন্দোলন করবে? তিনি তো শুধু মিথ্যা কথাই বলতে পারেন। মিথ্যার জন্য খালেদা জিয়া এবং তার দলের মহাসচিব ফখরুল ইসলাম পিএইচডি ডিগ্রি পাবেন।”

পাঁচ বছরের আগে দেশে কোনো নির্বাচন হবে না উল্লেখ করে শেখ সেলিম বলেন, “আগামীতে শেখ হসিনার অধিনেই সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে। এবং সেই নির্বাচনে খালেদা জিয়া আসতে বাধ্য হবে।”

তিনি বলেন, “খালেদা জিয়া এবার নির্বাচনে না এসে বিরোধী দলীয় নেতার পদ হারিয়েছেন। আগামী নির্বাচনে না আসলে তিনি বিএনপির চেয়ারপারসনের পদও হারাবেন।”
সেলিম বলেন, “বাংলাদেশ যতদিন থাকবে বঙ্গবন্ধু ও গোপালগঞ্জের নামও ততদিন থাকবে। পাকিস্তানিরা পারেনি। খালেদা জিয়াও গোপালগঞ্জের নাম পাল্টাতে পারবে না।”

দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম বলেন, “খালেদা জিয়া নির্বাচনে না আসায় আম-ছালা দুটোই হারিয়ে এখন শুধু আমের চোকলা নিয়ে টানাটানি করছে।”

তিনি বলেন, “বিএনপির রাজনৈতিক কোনো ইতিহাস নাই। যা আছে তা হলো রাজাকারের সঙ্গে হাত মেলানো। বাকি ইতিহাস যা সবই আওয়ামী লীগের।”

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও তেজগাঁও থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বক্তব্য দেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এমএ আজিজ, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, প্রচার সম্পাদক আবদুল হক সবুজ ও তেজগাঁও থানার নেতারা।

সম্মেলনের শুরুতে ৩৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলামের একটি পদত্যাগ পত্রের লিফলেট বিলিকে কেন্দ্র করে কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতিতে কর্মীদের দুটি গ্রুপ হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে।

এ সয়ম শেখ সেলিম, মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া ও আসাদুজ্জামান খান কামালের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

সম্মেলন শেষে ২৪,২৫,২৬,২৭ ও ৯৯ নং ওয়ার্ডের কমিটি গঠনের জন্য প্যানেল আহ্বান করেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments