শুক্রবার, অক্টোবর 29, 2021
শুক্রবার, অক্টোবর 29, 2021
শুক্রবার, অক্টোবর 29, 2021
spot_img
Homeকক্সবাজারসেন্টমার্টিন সমুদ্রে ৩ শিক্ষার্থীর মৃত্যু, আরোও ৪জন নিখোঁজ

সেন্টমার্টিন সমুদ্রে ৩ শিক্ষার্থীর মৃত্যু, আরোও ৪জন নিখোঁজ

সেন্ট মার্টিনে সমুদ্র সৈকতে গোসল করতে নেমে আজ সোমবার ঢাকার আহছানউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে দু’জনের নাম জানা গেছে। তাঁরা হলেন মফিজুল ইসলাম ইভান ও সাদ্দাম হোসেন অঙ্কুর। এ ছাড়া সাব্বির, উদয়, নোমান ও বাপ্পী নামের আরোও চারজন শিক্ষার্থী নিখোঁজ রয়েছেন বলে জানা গেছে।

 
এদিকে মুমূর্ষু অবস্থায় ফয়সাল, আশিক, ফারহান ও ইফতেখার মাহমুদকে উদ্ধার করা হয়েছে। বর্তমানে তাঁরা টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এখান থেকে একজনের মৃত্যু হয়েছে। তবে তার নাম জানা যায়নি।

 
ভ্রমনে আসা এসকল শিক্ষার্থীরা ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র বলে জানা যায়। ৩৪ জন শিক্ষার্থীর একটি দলআজ সোমবার দুপুর ১২টায় সেন্ট মার্টিনে যান।
সূত্র জানিয়েছে, সেন্টমার্টিনে বেড়াতে এসে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৪ শিার্থীর মধ্যে গোসল করতে নেমে ৯ জন সাগরে হারিয়ে যান। ঘটনার ১৫ মিনিটের মধ্যেই কোস্টগার্ডের সেন্টমার্টিন স্টেশন ৫ জন শিক্ষার্থীকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করতে পারলেও ৪ শিক্ষার্থীকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। পরে প্রায় আড়াই ঘন্টা পর বিকাল ৪টার দিকে একজনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

 
উদ্ধারকারি কর্মকর্তা কোস্টগার্ডের সেন্টমার্টিন স্টেশন কমান্ডার লে. শহিদুল হাসান সাংবাদিকদের জানান, নিখোঁজ ৩ শিার্থীকে উদ্ধারে চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।
সেন্ট মার্টিন দ্বীপের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমদ জানান, ওই ৩৪ জন শিক্ষার্থী টেকনাফ থেকে এল.সি.টি কুতুবদিয়া জাহাজে করে দুপুর ১২টায় সেন্টমার্টিনে পৌঁছেন। বেলা দুইটার দিকে কয়েকজন শিার্থী দ্বীপের জেটি ঘাটের উত্তর-পূর্ব পাশে প্রিন্স হ্যাভেন পয়েন্ট দিয়ে গোসল করতে নামেন। কিছুণ পর ছাত্রদের মধ্যে হইচই শুরু হয়। স্থানীয় লোকজন গিয়ে মুমূর্ষু অবস্থায় ওই ছয় ছাত্রকে উদ্ধার করেন। তাঁদের কোস্ট গার্ডের একটি স্পিডবোটে করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়।

 
টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক এনামুল জানান, ছয় শিক্ষার্থীকে হাসপাতালে আনার পর দুজনকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়।
স্থানীয় লোকজন জানান, যে পয়েন্টে ওই ছাত্ররা নেমেছিলেন সেখানে পানির স্রোত বেশি ছিল। আর তখন ভাটা থাকায় স্রোতের টানে হয়তো ভেসে গিয়েছিলেন।
টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রঞ্জিত বড়ুয়া জানান, আমরা আপাতত দুইজনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করতে পেরেছি। আর নিখোঁজ ছাত্রদের বিষয়ে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments