কুমিল্লায় ব্যবসায়ীকে র‌্যাব-পুলিশ পরিচয়ে ধরে নিয়ে যাওয়ার পর থেকে নিখোঁজ

কুমিল্লায় এক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীকে র‌্যাব ও পুলিশের পোষাক পরা একটি দল বাসা থেকে তুলে নিয়ে যাওয়ার পর থেকে নিখোঁজ রয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা। র‌্যাব-পুলিশের পরিচয়ে উঠিয়ে নেওয়া ওই ব্যবসায়ীর নাম মহিউদ্দিন। সোমবার দিবাগত রাত ৩টায় তাকে বাসা থেকে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়। পরিবারের সদস্যরা এরপর কোতয়ালী থানা, ডিবি অফিস ও র‌্যাবের কার্যালয়ে যোগাযোগ করে তার কোন খবর পান নি। এ ঘটনায় পরিবারের প থেকে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরী করেছেন।

 

পরিবারের সদস্যরা জানান, মহিউদ্দিন স্ত্রী, দুই মেয়ে এবং এক ছেলে নিয়ে কুমিল্লা শহরের মুন্সেফবাড়ি রোডে ভাড়া বাসায় থাকেন। তিনি শহরের চর্থা চৌমুহনীতে রাস্তার উপর ভ্যানে করে কাবাবের দোকান পরিচালনা করেন। তার গ্রামের বাড়ি ব্রহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগরে। সোমবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে ২ জন র‌্যাবের পোষাকে, ৩ জন পুলিশের পোষাকে এবং ৫ জন সাদা পোষাক ধারী লোক এসে বাসায় তার নাম ধরে ডাকাডাকি করে তাকে ঘুম থেকে তুলে তাদের সাথে যেতে বলে। কিন্তু কি কারনে বা কি অপরাধে জানতে চাইলে র‌্যাব ও পুলিশের পোষাকের লোকজন তাকে মারধর করে। পরে তাকে সেখান থেকে তুলে নিয়ে যায়। মহিউদ্দিনের স্ত্রী রীনা বেগম জানান, আমরা চিৎকার দিতে চাইলে তারা আমাদেরকে মারধরের হুমকি দেয়। আমি ও আমার মেয়েদের এক রুমে ডুকিয়ে বসিয়ে রাখে। পরে আমার স্বামীকে একটি কালো রংয়ের পুলিশের ভ্যানের মতো একটি ভ্যানে তুলে নিয়ে যায়।

 

মহিউদ্দিনের মেয়ে বৃষ্টি আক্তার জানান, তার বাবা কোন রাজনীতি করেন না। সাধারণ মানুষ। তার বিরুদ্ধে কোথাও কোন অভিযোগও নেই। তাকে গুম করা বা ধরে নিয়ে যাওয়ার মতো লোক তিনি নন। বৃষ্টি আরো জানান, আমরা কোতয়ালী মডেল থানা, ডিবি অফিস ও র‌্যাবের অফিসে যোগাযোগ করেছি। মহিউদ্দীন নামে কাউকে ধরে আনেননি বলে র‌্যাব-পুলিশ জানায়। মহিউদ্দিনের এক ছেলে মোঃ রফিক এবার এসএসসি পরীা দিয়েছে। মেয়ে বৃষ্টি আক্তার ও মনি আক্তার কুমিল্লা স্টেডিয়ামে ক্রিকেট ও ফুটবলার।

 

এ দিকে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার অফিসার (তদন্ত) সামসুজ্জামান জানান, কোতয়ালী পুলিশ কোন বাহিনীর সাথে যৌথ কোন অভিযানে যায়নি। তা ছাড়া থানায় মহিউদ্দিন নামে কাউকে ধরেও আনা হয়নি। এ ঘটনায় পরিবারের প থেকে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরী করেছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।