শাহপরীরদ্বীপে বলি খেলার নামে চলছে জমজমাট মদ-জুয়ার আসর

আওয়ামীলীগের নাম ব্যবহার করে একটি মহল টেকনাফ শাহপরীরদ্বীপে বলী খেলার নামে চলছে জমজমাট মদ-জুয়ার আসর। রাস্তার মাথা এলাকায় বৈশাখী মেলার নামে চলছে জমজমাট মদ-জুয়া ও পতিতার আসর বসিয়ে এলাকার ছাত্র যুবকদের নৈতিক চরিত্র স্খলনের পাশাপাশি সাধারন লোকজনকে সর্বশান্ত করার অভিযোগ উঠেছে।

 

এলাকাবাসি অভিযোগ করেছেন বলি খেলার আয়োজকরা শুধু জুয়ার আসর বসিয়েই কান্ত হয়নি পাশ্ববর্তী সব্বির ও সমুদার বাড়িতে মদ ও পতিতার আসরও বসিয়েছেন। গত এক সপ্তাহ আগে থানা পুলিশকে ম্যানেজ করে শাহপরীরদ্বীপ আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক মনির উল্লাহ এই বলী খেলা শুরু করেন।

 

এ প্রসঙ্গে শাহপরীর দ্বীপ আওয়ামীলীগের সভাপতি সোনা আলী জানান, আওয়ামীলীগ একটি সুনামধন্য রাজনৈতিক দল। কোন ব্যক্তি নিজের টাকা আয় করার জন্য সংগঠনের নাম ব্যবহার করতে পারে না। তাই দলীয় দূর্নাম থেকে রেহায় পাওয়ার জন্যা ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে।

 

স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, থানা পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসনকে কৌশলে ম্যানেজ করে আওয়ামীলীগ নেতা মনির উল্লাহ প্রকাশ্য দিবালোকে জমজমাট জুয়ার, মদ ও পতিতার আসর বসালেও স্থানীয় প্রশাসন কোন ধরনের মাথা ব্যাথা নেই।

 

এলাকার আলেম সমাজ ও সচেতন মহল জানান, গ্রামীন বলি খেলায় কারও আপত্তি নেই কিন্তু বলি খেলার নামে যা চলছে তা বন্ধ হওয়া উচিত। এলাকাবাসী আরও জানান, দ্বীপের পশ্চিম পাশের বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে প্রতিনিয়ত জোয়ার-ভাটায় পরিনিত হয়েছে। এই সময় আল্লাহর কাছে প্রার্থনা প্রয়োজন। এ অবস্থায় একটি মহল সুবিধা ভোগ করার জন্য বলি খেলার নাম দিয়ে  জুয়া, মদ ও পতিতার আসর বসিয়ে টুপাইস কামিয়ে নিচ্ছে যা অত্যন্ত দুঃখজনক। এছাড়া জুয়া খেলার কারনে এলাকায় চুরি-ডাকাতি, মারামারিসহ বিভিন্ন ধরনের অপরাধ কর্মকান্ডের আশংকা রয়েছে। তাই এ ধরনের অনৈতিক কর্মকান্ড বন্ধের জন্য শাহপরীরদ্বীপবাসি জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, ইউএনও ও ৪২ বিজিবির অধিনায়কের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
টেকনাফ উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা ইউএনও শাহ মোজাহিদ উদ্দিন বলেন, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন ধরনের বলি খেলা ও মেলার জন্য অনুমতি দেওয়া হয়নি।

 

এব্যাপারে বলিখেলার আয়োজক শাহপরীর দ্বীপ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মনির উল্লাহর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, থানার ক্যাসিয়ার আব্দুল গণির সাথে ৪০ হাজার টাকায় চু্িক্ত করে এ বলি খেলা চালানো হচ্ছে। মদ-জুয়ার আসর সম্পর্কে তিনি বলেন এগুলো টুকটাক হয়ে থাকে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।