রবিবার, নভেম্বর 28, 2021
রবিবার, নভেম্বর 28, 2021
রবিবার, নভেম্বর 28, 2021
spot_img
Homeউপজেলা ২২ ঘন্টা অন্ধকারে মনোহরগঞ্জ উপজেলাবাসী

২২ ঘন্টা অন্ধকারে মনোহরগঞ্জ উপজেলাবাসী

কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলাবাসী প্রায় ২২ ঘন্টা বিদুৎ বিহীন সময় পার করেছে। মঙ্গলবার রাতে কালবৈশাখী ঝড়ে বিভিন্ন স্থানে বিদ্যুতের সংযোগ ছিড়ে গেলে উপজেলার প্রায় সাড়ে ৩ লাখ জনসাধারণ অন্ধকারে নিমজ্জিত হয়। এছাড়াও ঘন-ঘন লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে এলাকার সাধারণ মানুষ।
জানা গেছে, কুমিল্লা জেলার ১৬টি উপজেলার মধ্যে মনোহরগঞ্জবাসীকে সবচেয়ে বেশি বিদ্যুতজনিত সমস্যাভোগ করতে হয়। সাধারণত এই উপজেলায় ২৪ ঘন্টার মধ্যে ১৪/১৫ ঘন্টাই থাকে লোডশেডিং। এছাড়া, এ উপজেলায় বিদ্যুত সংযোগের তারগুলোর অবস্থা একেবারেই নাজুক। সামান্য ঝড়-বৃষ্টিতেই বন্ধ হয়ে যায় বিদ্যুৎ সরবরাহ। গত মঙ্গলবার রাতে বয়ে যাওয়া মাত্র কয়েক মিনিটের কালবৈশাখী ঝড়ে এই উপজেলার বিভিন্ন স্থানে তার ছিড়ে যায়। এতে প্রায় ২২ ঘন্টা অন্ধকারে থাকে উপজেলাবাসী। গতকাল বুধবার বিকেল ৫টা পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয়নি। দীর্ঘণ বিদ্যুৎ না থাকায় এলাকার ছোট-বড় কারখানাসহ আবাসিক ও বাণিজ্যিক গ্রাহকদের ভোগান্তিতে পড়ে। বিদুৎ না থাকায় বিপাকে পড়েন উপজেলা ও পুলিশ প্রশাসনের কর্মকতারাও। ব্যাঘাত ঘটে চলতি বছরের এসএসসি পরীার্থীসহ শিার্থীদের পড়াশুনায়। ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও ব্যাংক-বীমা অফিসের কার্যক্রম ব্যাহত হয়। তাছাড়া বাসাবাড়ির ফ্রিজে রতি খাবার নষ্ট হওয়াসহ হাসপাতালের চিকিৎসা কার্যক্রম মারাত্মকভাবে ব্যাহত হয়।
স্থানীয় ভুক্তভোগীরা জানান, বিদ্যুত কর্মকর্তাদের গাফেলতি ও দীর্ঘদিন থেকে বিদুৎ লাইন মেরামত না করায় এমন পরিস্থিতি প্রায়ই সৃষ্টি হয়ে থাকে। এ ব্যাপারে মনোহরগঞ্জ থানার ওসি হারুন-অর-রশিদ চৌধুরি জানান, ‘বিদ্যুৎ না থাকায় থানার অফিসের কাজ চালিয়ে নিতে খুবই কষ্ট হচ্ছে’। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোস্তফা মোরশেদ বলেন, ‘বাংলাদেশের কোথাও বিদ্যুতের এমন সমস্যা আছে বলে আমার মনে হয় না। ঘন ঘন লোডশেডিং এবং একটু ঝড় হলেই বিদুৎ থাকে না। এ কারনে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের কাজের ব্যাঘাত ঘটছে।’ এ বিষয়ে মনোহরগঞ্জ উপজেলা পল্লী বিদ্যুৎ কর্মকর্তার মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করা হলেও মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments