শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
spot_img
Homeশিক্ষাঙ্গণরাবি প্রেস ক্লাবের ২৮ বছর পূর্তি উৎসব উদযাপিত

রাবি প্রেস ক্লাবের ২৮ বছর পূর্তি উৎসব উদযাপিত

‘আমরা নির্ভীক সত্য লিখবোই’ এ শ্লোগানকে  সামনে রেখে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) প্রেস ক্লাবের ২৮ বছর পূর্তি উৎসব পালন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকরা।

রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় রাবি প্রেস ক্লাব চত্বরে বেলুন-ফেস্টুন উড়িয়ে এ উৎসবের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয় উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. চৌধুরী সারওয়ার জাহান।

উদ্ভোধন শেষে ক্যাম্পাসে একটি বর্ণাঢ্য র্যা লি বের করা হয়। র্যা লিটি ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিশ্ববিদ্যালয় ডিনস্ কমপ্লেক্সে শেষ হয়। এরপর বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ডিনস্ কমপ্লেক্স কনফারেন্স রুমে ‘বিপন্ন গণমাধ্যম ও আজকের করণীয়’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

রাবি প্রেস ক্লাবের সভাপতি ডালিম হোসেন শান্তের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল্লাহ সাইফের পরিচালনায় আলোচনা সভায় প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (একাংশ) মহাসচিব এম এ আজিজ, প্রধান অতিথি রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, বাংলাদেশ প্রতিদিনের নির্বাহী সম্পাদক পীর হাবিবুর রহমান, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (একাংশ) সহ-সভাপতি রেজাউল করিম রাজু, রাবি প্রেস ক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা প্রফেসর ড.আব্দুর রহমান সিদ্দিকী, ছাত্র উপদেষ্টা প্রফেসর ড. সাদেকুল আরেফিন মাতিন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. মু. রফিকুল ইসলাম।

শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি প্রফেসর ড. মু আজহার আলী, দৈনিক রাজশাহীর আলোর সম্পাদক আজিবার রহমান, রাবি প্রেস ক্লাবের উপদেষ্টা প্রফেসর ড. হাসানাত আলী,  রাবি প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি এরশাদুল বারী কর্ণেল, আজিবুল  হক পার্থ, সহ-সভাপতি রহিদুল ইসলাম নিরব, সরদার হাসান ইলিয়াস তানিম প্রমূখ।

বক্তব্যে প্রধান আলোচক এম এম আজিজ বলেন, “গণমাধ্যম হচ্ছে সমাজের দর্পন। শক্তিশালী ও স্বাধীন গণমাধ্যম ছাড়া কোনো রাষ্ট্রের গণতন্ত্র টিকে থাকতে পারেন। যে দেশে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নেই সেদেশে গণতন্ত্র থাকতে পারে না।”

তিনি বলেন, “বর্তমানে সাংবাদিকদের স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি নেই। সাংবাদিকদের হত্যা করা হচ্ছে। মামলা দিয়ে কারাগারে রেখে নির্যাতন চালনো হচ্ছে। বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে পত্রিকা ও টিভি চ্যানেল। এটা গণতন্ত্রে জন্য অশনি সংকেত।”

তিনি আরা বলেন, “আমরা দেশ ও জণগণের পক্ষে সাংবাদিকতা করি। যারা দেশ ও জনগণের বিরুদ্ধে অবস্থান নেবে আমরা তাদের বিরুদ্ধেই লিখব।”

তিনি সাংবাদিকদের সাহসিকতার সঙ্গে তাদের পেশাগত দায়িত্ব পালনের আহবান জানান এবং সাংবাদিক হত্যা ও  তাদের ওপর হামলার বিচার দাবি করেন।

প্রধান অতিথি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, “বর্তমানে দেশে এক অরাজক পরিস্থিতি বিরাজ করছে। গুম, খুন অপহরণের মাধ্যমে সাধারণ মানেুষের প্রতিবাদী কন্ঠ রোধ করা হচ্ছে। প্রতিনিয়ত মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে। জনগণ তাদের সাংবিধানিক অধিকার থেকে বঞ্চিত।”

দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের নির্বাহী সম্পাদক পীর হাবিবুর রহমান বলেন, “শাসক শ্রেণী সব সময় গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করতে চায়। তাদের দুঃশাসন ও দুর্নীতি ঢাকতে তারা পত্রিকা ও টিভি চ্যানেল বন্ধ করে দেয়। আমাদের দেশে মধ্যমপন্থীদের কোনো জায়গা নেই। আজকে রাজনীতিতে ফরমালিন। শিক্ষাঙ্গনে ফরমালিন। পদপদবির লালসা। সব খানে দলবাজি।”

উৎসবের অন্য কর্মসূচির মধ্যে ছিল বিকেলে ক্লাবের সাবেক সদস্যদের নিয়ে স্মৃতিচারণ এবং সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয় কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়াতনে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments