একরামুল হক একরাম হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত পিস্তলটি উদ্ধার

ফুলগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান একরামুল হক একরাম হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত পিস্তলটি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় রিমান্ডে থাকা আসামি জাহিদ চৌধুরীর জিজ্ঞাসাবাদে দেয়া তথ্য অনুসারে সোমবার গভীর রাতে তার নিজ কার্যালয় থেকে ওই পিস্তল ও চারটি গুলি উদ্ধার করা হয়।

গত রোববার একরাম হত্যাকাণ্ডে সন্দেহভাজন জাহিদ চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সোমবার জাহিদকে আটদিনের রিমান্ডে নেয়া হয়।

ফেনী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মেজবাহ উদ্দিন জানান, শহরের মিজান রোডের সালাম কমিউনিটি সেন্টারের পেছনে আসামি জাহিদ চৌধুরীর কার্যালয়ে টেলিভিশন বাক্সের ভেতর থেকে পিস্তল ও গুলি উদ্ধার করা হয়।

সোমবার রাতে জিজ্ঞাসাবাদে দেয়া তথ্য অনুসারে ওই হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত পিস্তল ও গুলি উদ্ধার করা হয় বলে জানান তিনি।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন, হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় রিমান্ডে থাকা সব আসামিকে পুলিশ পৃথকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে। পূর্ণাঙ্গ তদন্ত ছাড়া সব কথা বলা যাবে না।

এদিকে আসামিদের আরও জিজ্ঞাসাবাদের  জন্য চট্টগ্রামের অতিরিক্ত উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মাহবুবুর রহমানের নেতৃত্বে ছয় সদস্যের একটি দলের মঙ্গলবার ফেনীতে পৌঁছানোর কথা রয়েছে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত ২০ মে ফেনীর একাডেমি এলাকার বিলাসী সিনেমা হলের সামনে প্রকাশ্যে ফুলগাজী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ সভাপতি একরামুল হক একরামকে গুলি করে ও পুড়িয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ সময় তার সঙ্গে থাকা সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান, স্থানীয় পত্রিকার সম্পাদক ও গাড়িচালকও অগ্নিদগ্ধ হন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।