কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে দুর্ধর্ষ ডাকাতি ॥ ডাকাতদের হামলায় আহত ৫

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে শনিবার গভীর রাতে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় একই বাড়ির দুই পরিবারে ডাকাতি চালায় ডাকাত দল। ডাকাতরা নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কারসহ প্রায় ১১ লাখ টাকার মালামাল লুটে নেয়। ডাকাতদের হামলায় ওই দুই পরিবারের পাঁচ সদস্য আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে শহিদ উল্ল্যাহ নামে এক জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

 
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শনিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে ১০/১২ জনের একটি সশস্ত্র ডাকাতদল২চৌদ্দগ্রাম উপজেলার বাতিশা ইউনিয়নের দৈয়ারা গ্রামের মোঃ শহিদ উল্ল্যাহ ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে। এসময় ঘরের লোকজন শোরচিৎকার শুরু করলে ডাকাতরা গৃহকর্তা শহিদ উল্ল্যাহ ও তার স্ত্রী পেয়ারা বেগমের ওপর হামলা চালিয়ে তাদের আহত করে। এসময় ডাকাতরা শহিদ উল্ল্যাহকে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে।

 

পরে ডাকাতরা শহিদ উল্ল্যাহর ভাই মীর হোসেনের ঘরে প্রবেশ করে ৩ জনকে মারধর করে আহত করে। সশস্ত্র ডাকাতদল শহিদ উল্ল্যাহ ও মীর হোসেনের ঘর থেকে নগদ ১ লাখ ৫ হাজার টাকা, ১৬ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, ২টি টেলিভিশন, ৭টি মোবাইল সেট, অন্যান্য মালামালসহ প্রায় ১১ লাখ টাকার মালামাল লুটে নেয়। স্থানীয়রা ডাকাতদের হামলায় আহত শহিদ উল্ল্যাহ সহ অন্যদের চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে শহিদ উল্ল্যাহর অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ব্যাপারে চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশ জানায়, ডাকাতির খবর শুনে রাতেই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।