শুক্রবার, অক্টোবর 22, 2021
শুক্রবার, অক্টোবর 22, 2021
শুক্রবার, অক্টোবর 22, 2021
spot_img
Homeরাজনীতিনজরুল-রমেশ জড়িত গার্মেন্টস খাতের ষড়যন্ত্রে: তোফায়েল

নজরুল-রমেশ জড়িত গার্মেন্টস খাতের ষড়যন্ত্রে: তোফায়েল

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ অভিযোগ করেছেন, ইন্ডাস্ট্রিঅল বাংলাদেশ নামের একটি সংগঠন বাংলাদেশের তৈরি পোশাকখাতের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। তিনি রবিবার নিজ মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন।

 

 

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র সফরের তথ্য তুলে ধরতেই এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ইন্ডাস্ট্রিঅলের প্রধান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান এবং মহাসচিব আওয়ামী নেতা রায় রমেশ চন্দ্র। তবে রমেশকে আওয়ামী লীগের কমিটি থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

 

তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘এবার ওয়াশিংটনে না গেলে জানতামই না বাংলাদেশে শ্রমিক নির্যাতন হয়।’ ইন্ডাস্ট্রিঅল সংগঠনের পক্ষ থেকে বাংলাদেশের গার্মেন্টস খাতের বিরুদ্ধে চিঠিপত্র দেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

 

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘দেশে তো কেবল আসলাম। দেশের স্বার্থের বিরুদ্ধে যারা কাজ করবে, তাদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া যায় তা চিন্তা-ভাবনা করতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে কিছু শ্রমিক নেতা আছেন, যারা শ্রমিক নন। বিদেশিরা কল্পনা আক্তার এবং বাবুল আক্তারসহ বেশ কয়েকজনের নাম বলেছে, যারা আসলে শ্রমিক নন।’

 

যুক্তরাষ্ট্র সফরকালে মন্ত্রী সাতজন কংগ্রেসম্যান ও যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য প্রতিনিধি (ইউএসটিআর) এবং যুক্তরাষ্ট্রের হাভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সেমিনারে অংশ নেন। তিনি জানান, তারা সবাই বাংলাদেশ তৈরি পোশাক খাতে ‘উল্লেখযোগ্য ও অভাবনীয়’ উন্নতি করেছে বলে জানিয়েছেন।

 

 

একই সঙ্গে বাতিল করা জিএসপি সুবিধা পুনরুদ্ধারে যুক্তরাষ্ট্র যে ১৬টি শর্ত দিয়েছে সেগুলো পূরণে বাংলাদেশের অগ্রগতি সন্তোষজনক বলেও উল্লেখ করেছেন তারা। তবে এই মুহূর্তে যুক্তরাষ্ট্রে কোনো দেশের জিএসপি সুবিধা নেই জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী জানান, গত বছরের জুলাইয়ে তা শেষ হয়েছে। কংগ্রেস এই সুবিধা রিনিউ করলে বাংলাদেশের জিএসপি পাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দেবে। আর না পেলে রাজনৈতিক কারণ ছাড়া আর কোনো কারণ থাকতে পারে না।

 
এদিকে, তোফায়েল আহমেদের অভিযোগের বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে অভিযুক্ত রায় রমেশ চন্দ্র বলেন, ‘তিনি অনেক আগে শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে ছিলেন। ইন্ডাস্ট্রিঅল বাংলাদেশের পক্ষ থেকে কোথাও কোনো অভিযোগ করা হয়নি। তোফায়েল আহমেদের এ অভিযোগ সঠিক নয়।’

 

সংবাদ সম্মেলনে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমার কাছে বাংলাদেশের প্রত্যাশা কী জানতে চাইলে তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘ভারত বন্ধুপ্রতীম ও প্রতিবেশি রাষ্ট্র। স্বাধীনতার পর থেকে তাদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রয়েছে। যেই ক্ষমতায় থাকুক, ভারত তার পররাষ্ট্রনীতি পরিবর্তন করে না।’ তাহলে বাংলাদেশ পররাষ্ট্রনীতি পরিবর্তন করে কেন— জানতে চাইলে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘কই করে? আমাদের দেশেও তো পররাষ্ট্রনীতি একই থাকে। বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে হয় ভারতপ্রীতি আর তারা ক্ষমতার বাইরে থাকলে হয় ভারতভীতি।’

 
সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিবের দায়িত্বে থাকা অতিরিক্ত সচিব এটিএম মর্তুজা রেজা চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments