শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
spot_img
Homeউপজেলারায়পুর পাইলট উচ্ছ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষকের কান্ড..., তোলপাড়

রায়পুর পাইলট উচ্ছ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষকের কান্ড…, তোলপাড়

অষ্টম শ্রেণীর সনদপত্র দেওয়ার নামে সংখ্যালোগু যুবক ও মোসলমান যুবতীকে শ্রেণী কক্ষে প্রায় ২ ঘন্টা আটক করে তাদের দুইটি মোবাইল ও আরও ১৫ হাজার টাকার দাবিতে নন জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেওয়ার ঘটনায় তোলপাড় চলছে।

 

শনিবার (১৯ জুলাই) দুপুর ১ টায় লক্ষ্মীপুরের রায়পুর থানা সংলগ্ন পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ভিতরে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মনঞ্জুরুল কাদেরের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

এঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ ওই সংখ্যালগু যুবক ইউএনও, শিক্ষা কর্মকর্তা ও পরিচালনা কমিটির সভাপতিকে জানিয়ে থানায় অভিযোগ করেছেন।

 
ক্ষতিগ্রস্থ ইস্পাহানি মির্জাপুর চা’র বিক্রয় কর্মী রনজিত কুমার ঘোষ সাংবাদিকদের জানান, তিনি ও বেঙ্গল সু’র কর্মচারী কুলসুমাসহ রায়পুর নতুন বাজার এলাকায় মোস্তফা বেপারীর বাসায় বাড়া থাকেন।

 

কুলসুমার অষ্টম শ্রেণীর সদনপত্রের প্রয়োজন হওয়ায় পাশবর্তী রনজিতকে সঙ্গে করে বালিকা বিদ্যালয় গিয়ে সনদের বিষয় কথা বললে এক শিক্ষক তাদেরকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মনঞ্জুরুল কাদেরের কক্ষে নিয়ে যায়।

 

এসময় মনঞ্জুরুল কাদেরের কু-নজর পড়ে ওই সুন্দুরী যুবতীর উপর। একপর্যায় মনঞ্জুরুল কাদের রনজিতকে এক শ্রেণী কক্ষে নিয়ে প্রায় ২ ঘন্টা আটক রেখে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে ১৫ হাজার টাকা দাবি করে।

 

টাকা না দেওয়ায় রনজিদ ও কুলসুমাকে একত্রিত করে ছবি তুলে, দুইটি মোবাইল নিয়ে নন জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিয়ে লাঞ্ছিত করে ছেড়ে দেয়।

 

এঘটনায় ছাড়াও ওই প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে স্কুল ছাত্রী ও অভিভাবকসহ একাধিক অভিযোগ রয়েছে।  পরে এঘটনায় রনজিত তার চা কোম্পানির ডিস্ট্রিভিউটর স্বপন মিধৃাকে জানিয়ে থানায় অভিযোগ করেন।

 

এঘটনায় হিন্দুদের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

 
এঘটনায় অভিযুক্ত ভারপ্রাপ্ত প্রধান মনঞ্জুরুল কাদেরের মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগ করলেও তিনি ফোন ধরেননি।

 
ওই বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি রফিকুল হায়দার বাবুল পাঠান বলেন, ক্ষতিগ্রস্থ হিন্দু যুবক ঘটনাটি জানিয়েছেন। বিষয়টি খুব গুরুত্বের সাথে দেখা হচ্ছে।

 
রায়পুর থানা ওসি একেএম মনঞ্জুরুল হক আকন্দ বলেন, সংখ্যালগু যুবকের অভিযোগটি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবসায় নেওয়া হচ্ছে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments