গাজায় ৭২ ঘণ্টার জন্য যুদ্ধবিরতি

অবরুদ্ধ গাজায় নতুন করে ৭২ ঘণ্টার জন্য যুদ্ধবিরতিতে রাজি হয়েছে ইসরাইল ও হামাস। মানবিক কারণে এই যুদ্ধবিরতি দেয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। শুক্রবার বাংলাদেশ সময় ১১টা থেকেই যুদ্ধবিরতি কার্যকর হয়েছে।

 

এই যুদ্ধবিরতি কার্যকর করতে কাজ করে যাচ্ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি এবং জাতিসংঘ মহাসচিব মান কি-মুন। তাদের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, নিরপরাধ বেসামরিক মানুষদেরকে সহিংসতা থেকে সাময়িক উপশম বা মুক্তি দেবার জন্যই এই যুদ্ধবিরতি। গত ৮ জুলাই থেকে গাজায় যে হামলা চলছে তাতে এই প্রথম বারের মত একটানা ৭২ ঘণ্টার জন্য যুদ্ধবিরতি দিতে রাজি হয়েছে ইসরায়েল ও হামাস।

 

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি এবং জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি-মুন তাদের বিবৃতিতে ইসরায়েল ও হামাস – উভয়পক্ষকেই যুদ্ধবিরতির সকল শর্ত মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন।

 

যুদ্ধবিরতির এই সময়ে অবরুদ্ধ গাজাবাসী জরুরি ত্রাণ সহায়তা পাবেন।পাশাপাশি অন্য সব জরুরি কাজকর্ম যেমন নিহতদের দাফন করা, আহতদের চিকিৎসা করা এবং খাদ্য সংগ্রহ করতে পারবেন। যুদ্ধবিরতির এই সময়টুকুতে সৈন্যরা তাদের নিজ নিজ অবস্থানে অবস্থান করবেন বলেও বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

 

আরো লম্বা সময়ের জন্য যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে ইসরাইল ও হামাসকে রাজি করানোর জন্য আজ শুক্রবার থেকেই মিশরের রাজধানী কায়রোতে লড়াইরত এই দুই পক্ষের মধ্যে একটি আলোচনা শুরু হবার কথা রয়েছে।

 

 

গাজায় প্রায় এক মাস ধরে চলা ইসরাইলি হামলায় অন্তত ১,৪৪২ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরও কয়েক হাজার। এছাড়া নিজেদের ঘর-বাড়ি ছেড়ে শরণার্থী হয়েছেন আরো হাজার হাজার মানুষ।

 

সূত্র: বিবিসি

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।