নভেম্বর থেকে ফেসবুক যেভাবে বিনা মূল্যেই ব্যবহার করা যাবে

বেশ কিছুদিন ধরেই ফেসবুক ব্যবহারকারীরা চিন্তায় ছিলেন, নভেম্বর থেকে আসলেই ফেসবুক ব্যবহারের ক্ষেত্রে মাসিক ২.৯৯ ডলার চার্জ দিতে হবে কিনা, তা নিয়ে। কেননা এরকম একটি খবর ফেসবুকসহ বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ইতোমধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে। তবে সম্প্রতি এ ব্যাপারে নিজেদের মতামত জানিয়ে খবরটিকে গুজব বলে দাবী করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। ব্যবহারকারীদের বিনা মূল্যেই সেবা প্রদান করা হবে এবং ফেসবুক ব্যবহারের জন্য কোনো ফি দিতে হবে না বলে নিশ্চিত করেছে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটটি।

ফেসবুক ব্যবহারের জন্য চার্জ দিতে হবে এই গুজবটা ছড়ানো হয় যুক্তরাষ্ট্রের বিদ্রুপাত্মক ওয়েবসাইট ন্যাশনাল রিপোর্ট এর ফেসবুক সম্পর্কিত একটি প্রতিবেদন থেকে। প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছিল, নভেম্বর মাস থেকে ফেসবুক ব্যবহারের জন্য অর্থ খরচ করতে হবে।

ন্যাশনাল রিপোর্টের প্রতিবেদনে বলা হয়, সম্প্রতি ফেসবুক একটি সংবাদ সম্মেলন করেছে, যেখানে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের প্রতি মাসের খরচ নির্ধারণ করেছে। নভেম্বর মাস থেকে ২.৯৯ ডলার করে ফি দিয়ে তবেই ফেসবুক ব্যবহার করা যাবে।

শুধু তাই নয়, প্রতিবেদনটিতে ফেসবুকের সিইও মার্ক জাকারবার্গের বানোয়াট উদ্ধৃতিও ব্যবহার করা হয়েছে। যাতে বলা হয়েছে ‘ফেসবুক ব্যবহারের ওপর চার্জ বসানোর বিষয়টি নিয়ে দীর্ঘ ও ভালোভাবে চিন্তা করে দেখেছি এবং শেষ পর্যন্ত চার্জ বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমাদের এখনকার খরচ যেভাবে বেড়েছে তা মেটাতে আমরা যদি কোনো ব্যবস্থা না নিই, ভবিষ্যতে ফেসবুকের অস্তিত্ব থাকবে না।’তবে বিদ্রুপাত্মক ওয়েবসাইট হওয়ায় এই রিপোর্টটি আসলে পুরোপুরি কাল্পনিক। কিন্তু মজার ছলে ফেসবুকসহ বিভিন্ন ওয়েবসাইটে এই খবরটি ছড়িয়ে পড়ায়, ফেসবুক ব্যবহারকারীরা দুশ্চিন্তায় পড়ে।

মূল খবরকে ব্যঙ্গাত্মকভাবে উপস্থাপন করে এমন কয়েকটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট হচ্ছে, দ্য অনিয়ন, দ্য ডেইলি কারেন্ট ইত্যাদি। ফেসবুকে এ ধরনের খবরগুলো শেয়ার হওয়ার পর ব্যবহারকারীরা যেন বিভ্রান্তিতে না পড়ে সেজন্য এবার পদক্ষেপও নিতে যাচ্ছে ফেসবুক। প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট আরস টেকনিকাকে ফেসবুকের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, ফেসবুকের নিউজ ফিডে ‘স্যাটায়ার’ নামক একটি বিশেষ ট্যাগ যুক্ত করা হচ্ছে। ফলে প্যারোডি নিউজগুলো আলাদাভাবে পড়া যাবে।
তথ্যসূত্র: বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।