ব্যবসায়ী ও ছাত্রলীগ নেতা হত্যা রায়পুরে শিবির নেতা ও মাদক সম্রাট গ্রেফতার

লক্ষীপুরের রায়পুরে চাঞ্চল্যকর ছাত্রলীগ নেতা মিরাজ ও শহরের জেনারেটর ব্যবসায়ী মিজান হত্যা মামলার অন্যতম আসামী এক শিবির নেতা ও আরেক মাদক সম্রাটকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ। শনিবার (৪ অক্টোবর) ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওসি’র নেতৃত্বে শহরের মোহাম্মদিয়া হোটেলের পাশ থেকে দুইজনকে পৃথকভাবে গ্রেফতার করা হয়।

 
গ্রেফতারকৃতরা হলো-  মধ্যে কেরোয়া গ্রামের মো. বাবুলের ছেলে ও পৌর শিবিরের সভাপতি মো. পরান হোসেন এবং পৌর সভার দেনায়েতপুর গ্রামের সর্দারবাড়ীর আব্দুল করিমের ছেলে ও আন্তঃজেলার মাদক সম্রাট জহির হোসেন। গ্রেফতারের ঘটনায় অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ উভয় আসামীকে সকালে জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।
পুলিশ জানান, গত ১৫ ডিসেম্বর জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিরাজুল ইসলাম মিরাজকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।

 

এঘটনায় মিরাজের পিতা আবুল কালাম বাদী হয়ে শিবির নেতা পরান ও মাদক সম্রাট জরিকে আসামী করে ১০ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। এছাড়াও গত ২৫ ফেব্রুয়ারী শহরের জেনারেটার ব্যবসায়ী মিজান নিখোজ হওয়ার পর ৩১ ফেব্রুয়ারীতে ডাকাতিয়া নদী থেকে বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে তার স্ত্রী মরিয়ম বেগম রতনা বাদী হয়ে জহিরসহ ৭ জনকে আসামী করে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। শনিবার ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওসি’র নেতৃত্বে পুলিশ শহরের মোহাম্মদীয়া হোটেলের সামনে থেকে পৃথক ভাবে তাদের গ্রেফতার করেন। অন্য আসামীরা পলাতক থাকায় তাদের গ্রেফতার করা যায়নি।

 
রায়পুর থানার ওসি একেএম মনজুরুল হক আকন্দ বলেন, শিবির নেতা পরান ও মাদক সম্রাট জহিরের বিরুদ্ধে হত্যা, চাঁদাবাজি, মাদকসহ  পৃখক ভাবে দুইজনের বিরুদ্ধে ১৬টি মামলা রয়েছে। গ্রেফতারের পরেই উভয় আসামীকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারের প্রেরণ করা হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।