অনুমতি না পেলেও ৫ জানুয়ারি যেকোনো মূল্যে বিএনপির সমাবেশ

অনুমতি না পেলেও আগামী ৫ জানুয়ারি রাজধানী ঢাকায় পূর্বঘোষিত সমাবেশ করার বিষয়ে বিএনপির অনড় অবস্থানের কথা জানিয়েছেন দলের যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলন তিনি বিএনপির এ অবস্থানের কথা জানান।
রিজভী বলেন, “দৃঢ়তার সঙ্গে দ্ব্যর্থহীন কণ্ঠে আমরা বলতে চাই, ৫ জানুয়ারি আমরা কর্মসূচি করবই।”

ওই কর্মসূচি করতে সরকারের সহযোগিতা চেয়ে রিজভী বলেন, “আমরা বারবার অঙ্গীকার করছি, ৫ জানুয়ারি ২০ দলীয় জোটের জনসভা হবে সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ। আমরা এই জনসভায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সার্বিক সহযোগিতা চাই।’’

সরকার কর্মসূচির অনুমতি না দিলে কী হবে- এমন প্রশ্নে রিজভী বলেন, “অনুমতি না দিলে সে ক্ষেত্রে আমাদের কর্মসূচি দিতেই হবে। এ জন্য সরকারকেই দায় নিতে হবে।”

রিজভী জানান, ৫ জানুয়ারি সমাবেশ করার জন্য গণপূর্ত অধিদপ্তর ও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছে দরখাস্ত করেছে বিএনপি। গণপূর্ত বলেছে, পুলিশ মাইক ব্যবহারের অনুমতি ও নিরাপত্তা দিলে তারা সমাবেশের জন্য মাঠ দেবে। কিন্তু পুলিশের কাছ থেকে বিএনপি এখনো কোনো অনুমতি বা আশ্বাস পায়নি। রিজভী বলেন, “তাদের কী মতিগতি জানি না। তারা শাসকদল কি যুদ্ধ ঘোষণা করতে চান?”

বৃহস্পতিবার বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে নিয়ে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের বক্তব্যের নিন্দা জানান রিজভী। তিনি এরশাদকে গুজবের ‘মহানায়ক’ ও ‘অন্যতম জঘন্য রাজাকার’ আখ্যা দেন।

রিজভী দাবি করেন, “১৯৭১ সালে পাকিস্তান সেনাবাহিনী থেকে যারা মুক্তিযুদ্ধে যোগ দিতে গিয়ে ধরা পড়েছিলেন, তাদের বিচারের চেয়ারম্যান ছিলেন এরশাদ।”

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।