শুক্রবার, অক্টোবর 29, 2021
শুক্রবার, অক্টোবর 29, 2021
শুক্রবার, অক্টোবর 29, 2021
spot_img
Homeজেলাভোলার লালমোহনে ১৩৪ কোটি টাকার বাধ সংরক্ষন কাজের উদ্বোধন

ভোলার লালমোহনে ১৩৪ কোটি টাকার বাধ সংরক্ষন কাজের উদ্বোধন

নুর মোহাম্মদ (৬৫) পেশায় কৃষক। নদী ভাঙ্গনে ভীটা হারিয়েছেন তিনি, কয়েক বছরে আগেও ছিলো ফসলি জমি, খেলার মাঠ ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ নানা স্থাপনা। কিন্তু মেঘনার ভয়াল ছোবলে হাজারো মানুষকে নিস্ব হতে দেখেছেন তিনি। অবশেষে ভাঙ্গন রোধ কল্পে নদী সংরক্ষন কাজের উদ্বোধন হওয়ায় আনন্দে উদ্বেলিত তিনি।

 
তিনি জানান, বাধ স্থাপনের মাধ্যমে শুধু তিনি নন, সম্বলহারা হাজরো মানুষ খুজে পাবেন নতুন করে বাচাঁর ঠিকানা।

 
আব্দুল ওয়াদুদ (৪৫)। কালাশূরা এলাকায় বাড়ি তার। ছোট বেলা থেকেই নদীর ভয়ঙ্কর রুপ দেখেছেন তিনি। দেখেছেন সম্বলহারা মানুষের কান্না আর আহাজারী। তাদের মত তিনিও ভাঙ্গনের মুখে পড়ে নতুন স্থানের ঠিকানা খুজছিলেন। তবে বাধ উদ্বোধন হওয়ায় তিনি বেশে আনন্দিত। নিজ এলাকাতেই স্থায়ীভাবে বসবাসের স্থান খুজে পেয়েছেন।

 
তার অভিযোগ, ভাঙ্গন রোধ কল্পে বিগত সরকারের আমলে কোন বরাদ্দ হয়নি, প্রিয় ঠিকানা হারিয়ে অসহায় দিনাপিত করেছেন তারা। নদী ভাঙ্গন রোধ হবে জেনে সবার মত তিনিও বেশ আনন্দিত। খুশিতে আতœহারা সবাই।

 
ভোলার লালমোহন উপজেলার ধলীগৌরনগর ইউনিয়নের মেঘনার ভাঙ্গন রোধ কল্পে ১৩৪ কোটি টাকার বাধের কাজ হচ্ছে জেনে এভাবেই আনন্দ আর নতুন করে বাচার স্বপ্ন শুধু নুর মোহাম্মদ ও ওয়াদুদের নয়। এ আনন্দ আর স্বপ্ন যেন ইউনিয়নের অন্তত ৩০ হাজার মানুষের।

 
শুক্রবার সন্ধ্যায় দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর উদ্বোধন করা হয় এ প্রকল্পের। ভোলা-২ আসনের সাংসদ নুরুন্নবী চৌধূরী শাওন প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত এ কাজের উদ্বোধন করেন।

 
এ সময় লালমোহন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ গিয়াস উদ্দিন আহম্মেদ, পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলী মো: বেলায়েত হোসেন, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো: হারুন অর রশিদ, ডিভিশন-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী কাইছার আলম, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী নাহিদুজ্জামান খান। এছাড়াও ধলিগৌরনগর ইউপি চেয়ারম্যান হেদায়েত ইসলাম মিন্টুসহ স্থানীয় ও উপজেলা আ’লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 
উদ্বোধন শেষে সাংসদ নুরুন্নবী চৌধূরী শাওন বলেন, এ এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের দাবী লালমোহন ও তজুমদ্দিনের মানুষকে নদী ভাঙ্গনের হাত থেকে রক্ষা করা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভোলার সবচেয়ে বেশী ভাঙ্গন কবলিত ধলীগৌরনগর ইউনিয়নের ১৩৪ কোটি টাকার বরাদ্দ দিয়েছেন। এতে ব্লক ও জিও ব্যাগ ফেলে নদীর তীর সংরক্ষন করা হবে। এ প্রকল্প বাস্তাবায়নের ফলে দুই উপজেলার ৫লাখ মানুষ প্রধানমন্ত্রীকে দোয়া করেছে। তিনি বলেন, সরকার যে সকল কমিটমেন্ট দিয়েছেন তার সবই বাস্তবায়ন করছেন। এটা আবারো প্রমানিত হলো এ বাধ প্রকল্প’র বরাদ্দের মাধ্য দিয়ে। এ সময় তিনি বলেন, তজুমদ্দিনের চাচড়া ইউনিয়নের আরো দুটি প্রকল্প বাস্তবয়নের অপেক্ষায় রয়েছে।

 
ধলীগৌর নগর ইউনিয়নের জনতা বাজার এলাকার কামার খাল থেকে কালামূলা পর্যন্ত ৪কিলোমিটার দীর্ঘ বাঁধের উদ্বোধন করা হয়। এতে গত ২০ বছর পর ভাঙ্গনের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছেন ইউনিয়নের প্রায় ৩০ হাজার মানুষ।

 
এলাকাবাসী জানিয়েছেন, ভাঙ্গন রোধে ব্যবস্থা না নেয়ায় গত ২০ বছরে এ ইউনিয়নের ফলফা খালী, কালির চর, কুন্ড তলা, কামারের খাল, চেয়ারম্যান বাজার, নক্তিখালি, ফেদা কালী, মৃধারহাট ও পাটোয়ারী বাজারসহ বহু এলাকা মেঘনা গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। এতে সেখানকার রবিশস্য, ধান ক্ষেত, স্কুল, সাইক্লোন সেল্টার, মাদ্রাসা, হাজার হাজার বসত বাড়িসহ বিভিন্ন স্থাপনাসহ কোটি কোটি টাকার সম্পদ নষ্ট হয়।

 
ভাঙ্গন কবলিত এলাকার বাসিন্দা আমির হোসেন ও কাসেম আলীসহ অন্যরা জানান, দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে তারা ভাঙ্গন রোধের দাবী জানিয়ে আসলেও তাদের দাবী বাস্তবায়িত হয়নি। কথা রাখেনি জনপ্রতিনিধিরা। কিন্তু এ সরকারের আমলেই তাদের সাংসদ নুরুন্নবী চৌধূরী শাওন ভাঙ্গন রোধ কল্পে কার্যকরী ব্যবস্থা নেয়ার ফলে হাজারো মানুষ ভাঙ্গনের হাত থেকে রক্ষা পাবেন। কোটি টাকার সম্পদ হারিয়ে যাওয়ায় হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার পাশাপাশি বহু মানুষ স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগ হবে।
বাঁধের উদ্বোধন শেষে সাংসদ নুরুন্নবী চৌধূরী শাওন স্থানীয় মঙ্গলসিকদার বাজারে এক জনসভায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্য রাখেন। এতে সভাপতিত্ব করেন, ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি মাকদুসুর রহমান হাওলাদার।

 
এরআগে বিভিন্ন এলাকা থেকে সাংসদকে শুভেচ্ছা জানিয়ে খন্ড খন্ড মিছিল এসে হাজির হয়। বাধ উদ্বোধনের পর পরই এলাকার মানুষ মিষ্টি বিতরন করেন।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments